‘ভিআইপির কারণে চাকরির ইন্টারভিউ মিস′ | পাঠক ভাবনা | DW | 13.03.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘ভিআইপির কারণে চাকরির ইন্টারভিউ মিস'

বাংলাদেশে ভিআইপিদের কারণে রাস্তায় চলতে গিয়ে অনেককে নানারকম দুর্ভোগে পড়তে হয়৷ ডয়চে ভেলের পাঠকরা তাঁদের এমন কিছু দুর্ভোগের কথা ডিডাব্লিউ বাংলার ফেসবুক পাতায় তুলে ধরেছেন৷

আবদুর রাকিব মুসা ভিআইপিদের কারণে অসংখ্যবার বিড়ম্বনায় পড়ার কথা জানিয়েছেন৷ ঢাকায় যানজট অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছার কারণে তিনি তাঁর বিরক্তি প্রকাশ করেছেন এভাবে, ‘‘আমি যদি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হতাম ভিআইপি নামক শব্দটাই নিষিদ্ধ করে ফেলতাম৷ গণতন্ত্রের দেশে সবাই সমান অধিকার ভোগ করবে এটাই নিয়ম৷ কেন একজন অসংখ্য মানুষের ভোগান্তির কারণ হয়ে তথাকথিত ভিআইপি সুবিধা ভোগ করবে?''

সোহেল রানা তাঁর নিজের অভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে লিখেছেন, ‘‘একবার ৩ ঘণ্টা এক জায়গায় দাঁড়িয়ে ছিলাম, কারণ ভিআইপি ঘুমিয়ে পড়েছিলেন৷ উনি জেগে না ওঠা পর্যন্ত পুলিশ এলাকা ত্যাগ করতে দেয়নি৷''

মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বেশ মজা করে লিখেছেন, ‘‘কী যে বলেন, আমাদের দেশে ভিআইপিদের কারণে জনদুর্ভোগ কোনো ব্যাপার নাকি?''

আল মামুন শাওন নাকি একজন শীর্ষ ভিআইপির জন্য এক রাতে ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়েছিলেন, তবে তাঁর ভোগান্তিটা ঠিক কেমন ছিলো, তা তিনি পরিষ্কার করে লেখেননি৷

আর পাঠক তুষার আহমেদতো রাস্তায় ভিআইপির কারণে দেরি হওয়ায় তাঁর চাকরির ইন্টারভিউ-ই মিস করেছেন৷

মিজান রহমানকে একদিন রাত নয়টার সময় কাকলী থেকে মিরপুর ১৪ হেঁটে যেতে হয়েছে৷

মোহাম্মদ ফয়সাল লিখেছেন, ‘‘বিগত এক দশকে দেশে তথাকথিত ভিআইপির সংখ্যা বোধহয় একটু বেশিই বেড়ে গেছে৷''

পাঠক দিন হায়দায় দুঃখ করে লিখেছেন, ‘‘বাংলাদেশে এসব বিষয় নিয়ে মন্তব্য করলেও কোনো লাভ নেই৷ কারণ নিজেদের কমেন্টেস নিজেরাই পড়ি৷ যাদের উদ্দেশ্যে লিখবো তারা তো আর পড়ছেনা৷''

ভিআইপিদের কারণে ঢাকার   জনদুর্ভোগের বিষয়টি ডয়চে ভেলে পাঠকদের সামনে গুরুত্ব দিয়ে তুলে ধরায় আন্তরিক ধন্যবাদ দিয়েছেন পান্থ চৌধুরী৷

সংকলন:  নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন