ভারতে নামাজ-মসজিদ নিয়ে আগের রায় বহাল | বিশ্ব | DW | 27.09.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

ভারতে নামাজ-মসজিদ নিয়ে আগের রায় বহাল

নামাজের জন্য মসজিদ অপরিহার্য নয় বলে প্রায় আড়াই দশক আগের রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন খারিজ করে দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট৷ ওই মামলা পুনঃশুনানির জন্য বৃহত্তর বেঞ্চে পাঠানোর আবেদনও নাকচ করা হয়েছে৷

প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির বেঞ্চে বৃহস্পতিবার ২-১ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতামতের ভিত্তিতে আবেদনটি খারিজ হয়৷

১৯৯৪ সালের রায়ে বলা হয়, নামাজের জন্য মসজিদ অপরিহার্য নয়৷ যে কোনো জায়গাতেই নামাজ পড়া যায়৷ সরকারি কাজে প্রয়োজনে উপাসনাস্থলের জমি অধিগ্রহণে কোনো বাধা নেই৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এলাহাবাদ হাই কোর্ট ২০১০ সালে অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ-রামের জন্মভূমি নিয়ে বিরোধপূর্ণ জমি যেভাবে ভাগ করে দিয়েছিল, সেখানে আদালতের ওই রায়ের প্রভাব ছিল বলে অভিযোগ মুসলমানদের৷

সেই জায়গা থেকে নামাজ ও মসজিদ নিয়ে রায়টি পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদন করা হয়েছিল৷

সর্বোচ্চ আদালত আদেশে বলেছে, ওই রায় অযোধ্যার মূল মামলার (রামের জন্মভূমি-বাবরি মসজিদের জমি দ্বন্দ্ব) বিচারে কোনো প্রভাব ফেলবে না৷

তাতে আগামী ২৯ অক্টোবর নির্ধারিত দিনেই অযোধ্যার মূল মামলার শুনানি শুরু হতে আর কোনো বাধা থাকছে না৷

আদালতের এই আদেশে ক্ষমতাসীন বিজেপির লাভ হবে বলে মনে করছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি৷ অযোধ্যার বিতর্কিত ওই জায়গায় রাম মন্দির বানানোর ঘোষণা রয়েছে তাদের৷

১৯৯২ সালে করসেবক নামে পরিচিত উগ্রপন্থি হিন্দুরা ষোড়শ শতকের বাবরি মসজিদ ভেঙে দেয়৷ মসজিদের জায়গায় রামের জন্মভূমি ছিল বলে দাবি করে সেখানে মন্দির করতে চায় তারা৷

২০১০ সালে এলাহাবাদ হাই কোর্ট ওই জমি তিন পদ্ধতিতে হিন্দু ও মুসলমানদের মধ্যে ভাগ করে দেয়৷ তবে মূল অংশ পায় হিন্দুরা৷ হাই কোর্টের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যায় উভয় পক্ষ৷

এইচ/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন