ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ২৭০ জন চিকিৎসকের মৃত্যু | বিশ্ব | DW | 19.05.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ২৭০ জন চিকিৎসকের মৃত্যু

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে আগের চেয়ে অনেক বেশি চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হচ্ছেন। মৃত্যুও হচ্ছে গোটা দেশ জুড়ে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে এখনো পর্যন্ত ভারতে মৃত্যু হয়েছে ২৭০ জন চিকিৎসকের। মঙ্গলবার ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন এ বিষয়ে একটি রিপোর্ট পেশ করেছে। সেখানে কীভাবে চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের মৃত্যু হচ্ছএ, তা নিয়ে বিস্তারিত লেখা হয়েছে।

আইএমএ জানিয়েছে, করোনার প্রথম ঢেউয়ে ভারতে ৭৪৮ জন চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছিল। কিন্তু তা হয়েছিল অনেক মাস ধরে। দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে মাত্র এক মাস আগে। তাতেই ২৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে। বহু চিকিৎসক এখনো হাসপাতালে ভর্তি। পরিস্থিতি আরো জটিল এবং উদ্বেগজনক হতে পারে বলে মনে করছে মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন। আইএমএ জানিয়েছে, সংস্থার সাবেক প্রধান কে কে আগরওয়ালেরও মৃত্যু হয়েছে দ্বিতীয় ঢেউয়ে।

এখনো পর্যন্ত সব চেয়ে বেশি চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে বিহারে। ৭৮ জন ডাক্তার সেখানে মারা গেছেন। তারপরেই উত্তরপ্রদেশ, ৩৭ জন। দিল্লিতে মৃত্যু হয়েছে ২৯ জনের। অন্ধ্রপ্রদেশ মারা গেছেন ২২ জন চিকিৎসক।

স্বাস্থ্যকর্মীদের মৃত্যুর সংখ্যা এখনো জানায়নি আইএমএ। তবে তা চিকিৎসকদের চেয়ে অনেক বেশি বলেই মনে করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে স্বাস্থ্যকর্মী এবং চিকিৎসকের সংকটও দেখা দিয়েছে। তবে আশার কথা, সামান্য হলেও ভারতে করোনার প্রকোপ কমেছে। দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা তিন লাখের নীচে নেমে এসেছে। মৃত্যুর হার অবশ্য এখনো কমেনি। দিল্লিতে দৈনিক পজিটিভিটি রেট ছয় শতাংশের মতো। তবে পশ্চিমবঙ্গে এখনো আক্রান্তের সংখ্যা ঊর্ধ্বমুখী।

চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে ইতিমধ্যে। অধিকাংশ চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মী করোনার দ্বিতীয় ডোজ টিকা পেয়ে গেছেন। তার পরেও কীভাবে তাদের মৃত্যু হচ্ছে? চিকিৎসকদের একাংশ অবশ্য মনে করছেন, টিকা নেওয়া আছে বলেই দ্বিতীয় ঢেউয়ের ভয়াবহতার প্রভাব চিকিৎসকদের উপর সামান্য কম পড়েছে। যত চিকিৎসক আক্রান্ত হয়েছেন এবং হচ্ছেন, সে তুলনায় মৃত্যুর হার যথেষ্ট কম।

এসজি/জিএইচ (পিটিআই, এনডিটিভি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়