ভারতীয় মৎস্যজীবীদের আক্রমণ শ্রীলঙ্কার নৌ-সেনার | বিশ্ব | DW | 27.10.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

ভারতীয় মৎস্যজীবীদের আক্রমণ শ্রীলঙ্কার নৌ-সেনার

ভারতের মৎস্যজীবীদের আক্রমণ করল শ্রীলঙ্কার নৌ-সেনা। অভিযোগ, মৎস্যজীবীরা শ্রীলঙ্কার জলসীমায় প্রবেশ করেছিলেন।

ভারতীয় মৎস্যজীবীদের পাথর ছুঁড়ে মারা হলো। ছিঁড়ে দেয়া হলো তাঁদের জাল। শ্রীলঙ্কা নৌবাহিনীর এই আক্রমণে একজন মৎস্যজীবী আহত হয়েছেন।

ভারতীয় মৎস্যজীবীদের দাবি, তাঁরা শ্রীলঙ্কার জলসীমায় প্রবেশ করেননি। তা সত্ত্বেও শ্রীলঙ্কার সেনা এসে তাঁদের আক্রমণ করে। তারা বলে, শ্রীলঙ্কার জলসীমায় মাছ ধরা হচ্ছে। এই বিরোধের জেরে আহত হয়েছেন তামিলনাড়ুর রামেশ্বরমের এক মৎস্যজীবী।

অতীতে বহুবার তামিলনাড়ু অভিযোগ করেছে, শ্রীলঙ্কা তাদের মৎস্যজীবীদের আটক করেছে, তাদের ট্রলার বাজেয়াপ্ত করে রেখেছে, তাদের অযথা হয়রানি করা হচ্ছে। শ্রীলঙ্কার সাংসদরাও বহুবার এই প্রসঙ্গ সংসদে তুলেছেন। তাঁরা বারবার সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন, মৎস্যজীবীদের এই হয়রানি বন্ধ করতে ব্যবস্থা নিক সরকার। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে আলোচনা করা হোক। কিন্তু তারপরেও দেখা যাচ্ছে, ঘটনা বন্ধ হয়নি।

ভারতের সঙ্গে অধিকাংশ প্রতিবেশীর সম্পর্ক এখন খারাপ। পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক বরাবরই খারাপ। এখন তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে চীন ও নেপাল। বাংলাদেশের সঙ্গেও আগের সুসম্পর্কে কিছুটা চিড় ধরেছে বলে মনে করা হচ্ছে। ভারত অবশ্য বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক মেরামতের আপ্রাণ চেষ্টা করছে। এই অবস্থায় শ্রীলঙ্কা সেনার এই আচরণ সামনে এলো। এই ধরনের ঘটনায় তামিলনাড়ু সহ দক্ষিণ ভারতে ক্ষোভ-বিক্ষোভ ছড়ায়। তাই এই ধরনের ঘটনাকে সচরাচর হালকাভাবে নেয় না ভারতের বিদেশ মন্ত্রক।

জিএইচ/এসজি(এনডিটিভি)

বিজ্ঞাপন