‘ভর্তুকি দিয়ে ডিজেল দেয়া এই মুহূর্তে রাষ্ট্রের পক্ষে সম্ভব না’ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 05.11.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

‘ভর্তুকি দিয়ে ডিজেল দেয়া এই মুহূর্তে রাষ্ট্রের পক্ষে সম্ভব না’

সরকার বাধ্য হয়ে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন৷ তিনি বলেন, ‘‘বাংলাদেশের বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে ভর্তুকি দেয়া রাষ্ট্রের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না৷''

‘ডয়চে ভেলে খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’ ইউটিউব টকশোতে যোগ দিয়ে তিনি এমন মন্তব্য করেছেন৷ এবারের আলোচনার বিষয় ছিল: দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির রাজনীতি৷ অনুষ্ঠানে অপর অতিথি ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু৷

ডিজেল ও কেরোসিনের দাম বৃদ্ধি নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন,‘‘কোন কিছুরই মূল্য বৃদ্ধি সরকারের জন্য সুখকর নয়৷ দেশের স্বার্থে,অর্থনৈতিক স্বার্থেই সরকার জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়েছে৷’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘বাংলাদেশের বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থায় ভর্তুকি দিয়ে ডিজেল দেয়া এই মুহূর্তে রাষ্ট্রের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না৷ সম্ভব হলে কখনই জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার এটা বৃদ্ধি করতে না৷ কেননা এই করোনা মহামারীর মধ্যেও কর্ম সচল রাখতে ইনডিরেক্টলি ভর্তুকি প্রদান করতে হচ্ছে, সামাজিক নিরাপত্তা বলয়কে বৃদ্ধি করতে হয়েছে৷ এবং মানুষের ক্রয়ক্ষমতাও বেড়েছে৷ পাশাপাশি সুখবর হচ্ছে করোনা মধ্যেও মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে৷’’

বাংলাদেশে জ্বালানি তেলের দাম ভারতের চেয়ে কম থাকায় পাচারের শঙ্কা থাকে বলেও উল্লেখ করেন তিনি৷

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘‘পাচারের কথা বলে সরকার জনগণকে শাস্তি দিচ্ছে৷’’ বিজিবি ও প্রশাসনকে কেন সরকার ‘পুষছে' সেই প্রশ্ন তোলেন তিনি৷   

বিএনপির আন্দোলন নিয়ে দর্শকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘বাংলাদেশ একটা সীমাবদ্ধতার মধ্যে ঢুকে গেছে৷ যেটা এক পক্ষীয় শাসন বলতে পারবেন৷ রাজনীতি বলতে যা বোঝায় সেটা এতটাই নিয়ন্ত্রিত এবং ভয়ংকর অবস্থায় এসেছে যে স্বাভাবিক অবস্থা বলে কিছু নাই৷’’

তিনি বলেন, ‘‘ইলেকট্রনিক গণমাধ্যমে কথা বলার কারণে আমি রাষ্ট্রদ্রোহী মামলার আসামি৷... আর মামলা হোক সেটা আমি চাইব না৷ নিজস্ব সেন্সরশিপের মধ্যে আমাকে বসবাস করতে হচ্ছে৷’’

আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগ কোনো আন্দোলন বা ভিন্নমত দমন করতে চাইছে না৷ নির্বাচন নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘‘আমরা বিএনপিকে সহই একটি অর্থবহ নির্বাচন করতে চাই৷ আমরা কোনভাবেই বিতর্কিত নির্বাচন করতে চাই না৷’’

এফএস/এআই

দেখুন গত জুনের ছবিঘর...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়