ভবনে ভবনে থাকবে খ্রিষ্টানদের ধর্মীয় প্রতীক | বিশ্ব | DW | 26.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

ভবনে ভবনে থাকবে খ্রিষ্টানদের ধর্মীয় প্রতীক

জার্মানির বাভেরিয়ায় রাজ্যের অনেক ভবনে খ্রিষ্টানদের ধর্মীয় প্রতীক ‘ক্রস' টাঙানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর এ সিদ্ধান্ত নিয়ে চলছে তুমুল বিতর্ক৷

পহেলা জুন থেকে জার্মানির দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য বাভেরিয়ার অনেক ভবনেই শোভা পাবে ‘ক্রস'৷ সব স্কুলেও থাকবে এই প্রতীক৷ বাভেরিয়ার নবনির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী মার্কুস স্যোডার এই সিদ্ধান্ত নিয়েই বসে থাকেননি, মঙ্গলবার মিউনিখের স্টেট চ্যান্সেলারির লবিতে নিজের হাতে লাগিয়েও দিয়েছেন একটি ক্রস৷

আঙ্গেলা ম্যার্কেলের দল সিডিইউ-এর সহযোগী সংগঠন সিএসইউ-র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত স্যোডার আকস্মিক এ উদ্যোগের পক্ষে যুক্তি দেখাতে গিয়ে বলেছেন, ‘‘ এটি (ক্রস) বাভেরিয়ার পরিচয়ের স্বীকৃতি৷'' তবে এর মাধ্যমে রাজ্য প্রশাসনের ধর্মীয় নিরপেক্ষতা ক্ষুণ্ণ হবে কিনা এমন প্রশ্ন উঠেছে৷ স্যোডার মনে করেন, তাতে ধর্মীয় নিরপেক্ষতা অটুট থাকবে, এমনকি এর মাধ্যমে সংবিধানেরও লঙ্ঘন হবে না৷

এমনিতেই খ্রিষ্টান অধ্যূষিত রাজ্য বাভারিয়া৷ ২০১৬ সালের এক জরিপ অনুযায়ী, সেখানে মোট জনসংখ্যার শতকরা ৫০ দশমিক ৪ ভাগ রোমান ক্যাথলিক এবং ১৮ দশমিক ৮ ভাগ প্রটেস্ট্যান্ট৷ এ অবস্থায় মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কাজ শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই স্যোডারের এই  পদক্ষেপকে খ্রিষ্টানদের ধর্মানুভূতিকে কাজে লাগিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার কৌশল হিসেবে দেখছেন অনেকে৷

ভোট আদায়ের হাতিয়ার?

চলতি বছরের শেষের দিকে বাভেরিয়ায় নির্বাচন৷ তাই স্যোডারের এই সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছেন বাম দলের নেতা ইয়ান কর্টে৷ তাঁর প্রশ্ন, ‘‘সব পর্যায়ে জনগণকে বিভক্ত না করে সিএসইউ কেন কখনো সবাইকে একতাবদ্ধ করার কথা ভাবতে পারে না?'' তাঁর মতে, স্যোডারের এ সিদ্ধান্ত সংবিধান পরিপন্থি তো বটেই, এটি ধর্মকে ব্যবহার করে রাজনৈতিক সুবিধা আদায়েরও চেষ্টা৷

এফডিপি দলের প্রধান নেতা ক্রিস্টিয়ান লিন্ডনার স্যোডারকে তুলনা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এর্দোয়ানের সঙ্গে৷ তাঁর মতে, ‘‘মার্কুস স্যোডার এবং সিএসইউ-র রাজনীতিতে ধর্ম ব্যবহারের কৌশল এর্দোয়ানের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে৷ সংবিধানের কিন্তু কোনো ধর্ম নেই!''

তবে জার্মানির প্রটেস্ট্যান্ট চার্চ ফেডারেশন (ইকেডি)-র সভাপতি হাইনরিশ বেডফোর্ড-স্ট্রোম মনে করেন, বাভেরিয়া রাজ্যের ভবনগুলোতে ক্রস টাঙানোতে দোষের কিছু নেই৷ এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে ক্রস-এর মাহাত্ম্য মনে রেখেই তা ব্যবহার করার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি৷

বেন নাইট/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন