ব্লাসফেমি: পাকিস্তানে স্কুল-মন্দির তছনছ | বিশ্ব | DW | 16.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাকিস্তান

ব্লাসফেমি: পাকিস্তানে স্কুল-মন্দির তছনছ

পাকিস্তানে একজন হিন্দু অধ্যক্ষের ব্লাসফেমির অভিযোগে একটি বিদ্যালয় ও মন্দিরে সহিংসতা চালানো হয়েছে৷ এ ঘটনায় মুসলিম প্রধান এই দেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে৷

Pakistan Karatschi Hindu Tempel

করাচির একটি মন্দির (ফাইল ফটো)

দেশটির দক্ষিণ প্রদেশের সিন্ধু প্রদেশে মহানবীকে (সা.) নিয়ে একজন হিন্দু অধ্যক্ষ অবমাননাকর মন্তব্য করেছিলেন বলে একজন শিক্ষার্থী অভিযোগ তুললে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে৷

জেলা পুলিশ প্রধান ফুররুখ আলী রয়টার্সকে বলেন, বিক্ষুব্ধ জনতা একটি স্কুলে ভাংচুর করে এবং একটি মন্দিরে হামলা চালায়৷ এরপর অধ্যক্ষকে নিরাপত্তা হেফাজতে নেওয়া হয়েছে৷ পুলিশ উভয় ঘটনারই তদন্ত শুরু করেছে৷ মনে হচ্ছে অধ্যক্ষ ইচ্ছা করে কিছু করেননি৷

ইসলাম ধর্মের মহানবীকে অপমান করলে পাকিস্তানে বাধ্যতামূলকভাবে মুত্যুর সাজা হয়৷ প্রায় ৯৫ শতাংশ মুসলমানের এই দেশে কঠোর ব্লাসফেমি আইন কার্যকর রয়েছে৷ পাকিস্তানে ব্লাসফেমির জন্য এখনও কোনো ফাঁসি কার্যকর করা না হলেও এই আইনের বলে সংঘবদ্ধ জনতাকে কখনো কখনো হত্যা করা হয়েছে৷

মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, ধর্মবিরোধী এই ব্লাসফেমি আইনটি সাধারণত ধর্মীয় কট্টরপন্থিদের পাশাপাশি সাধারণ বহু পাকিস্তানদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হয়৷

পাকিস্তানের স্বাধীন মানবাধিকার কমিশন এই সহিংসতার নিন্দা জানিয়ে কর্তৃপক্ষকে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে৷ এই টুইটে কমিশন এই ঘটনাকে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে বর্বর হিংস্রতা এবং একে অগ্রহণযোগ্য হিসেবে আখ্যা দিয়েছে৷

পাকিস্তানের ২০৮ মিলিয়ন মানুষের মধ্যে বেশিরভাগ সুন্নি মসুলমান, হিন্দু সম্প্রদায়ের ১ দশমিক ৬ শতাংশ মানুষ সেখানে বসবাস করে৷

গত জানুয়ারিতে সুপ্রিম কোর্ট একটি মামলায় ব্লাসফেমির দায়ে মৃত্যুদণ্ডে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পরে কয়েক বছর জেলে কাটানো এক খ্রিস্টান নারীর খালাসের আদেশ বহাল রেখেছে৷

কাশ্মীরে জঙ্গি হামলার পরে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে হিন্দুদের নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করার গত মার্চে পাকিস্তানের এক প্রাদেশিক মন্ত্রীকে বরখাস্ত করা হয়৷

এসআই/কেএম (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়