ব্রেক্সিট বিষয়ে আলোচনা আর  চালাবে না লেবার পার্টি | বিশ্ব | DW | 17.05.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

ব্রেক্সিট বিষয়ে আলোচনা আর  চালাবে না লেবার পার্টি

ব্রেক্সিট নিয়ে অচলাবস্থা কাটাতে টেরেসা মে ও লেবার পার্টির মধ্যে ছয় সপ্তাহ ধরে চলে আসা আলোচনা কোনো মতৈক্য ছাড়াই শেষ হলো৷লেবার পার্টির প্রধান জেরেমি করবিন জানিয়েছেন, এ বিষয়ে টেরেসা মে'র সঙ্গে আর আলোচনা সম্ভব নয়৷

ফলে ব্রেক্সিট বিষয়ে আবারও অনিশ্চয়তার মুখে পড়তে যাচ্ছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে৷

তাঁকে পাঠানো এক চিঠিতে জেরেমি করবিন বলেন, ‘‘ব্রেক্সিট বিষয়ে তাঁদের পক্ষে যতদূর সম্ভব ছিল সে পর্যন্ত তাঁরা আলোচনা করেছেন৷'' ব্রেক্সিটের বিষয়ে এই দুই দলের অনেক নীতিগত পার্থক্য রয়েছে বলেও চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন৷ কনজারভেটিভ পার্টির সমালোচনা করে করবিন বলেন, নতুন নেতা নির্বাচনের বিষয়ে কনজার্ভেটিভ পার্টির প্রস্তাব সরকারকে আরো নাজুক অবস্থায় ফেলে দিয়েছে৷ ব্রেক্সিট বিষয়ে একটি সমন্বিত সিদ্ধান্ত নেওয়ার সামর্থ্যও এ সরকারের নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি৷ 

ফলবিহীন আলোচনা

ব্রেক্সিটের একটি কার্যকর উপায় খুঁজে বের করতে গত ছয় সপ্তাহ ধরে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছিল এ দুই রাজনৈতিক দল৷ তবে ব্রেক্সিটের বিষয়ে লেবার পার্টিকে কোনো ছাড় দেওয়া হলে তা কনজারভেটিভ পার্টির মধ্যে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া তৈরি করবে- টেরেসা মে এ বিষয়ে  সতর্ক ছিলেন৷ 

লেবার পার্টির প্রস্তাব তিন বার দেশটির পার্লামেন্টের অনুমোদন পেথে ব্যর্থ হয়েছে৷ আগামী জুন মাসের প্রথম দিকে আবারো অনুমোদনের  জন্য পার্লামেন্টে ওঠানো হবে মে'র প্রস্তাব, যদিও ব্রেক্সিট বিষয়ে লেবার পার্টির বিরোধী সদস্যরাই এ সংক্রান্ত প্রস্তাব নাকচ করে দেয়ার জন্য মুখিয়ে আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷

তবে মে'র প্রস্তাব সংসদে অনুমোদিত হলে আগামি জুলাই মাস নাগাদ ইউরোপীয় জোট থেকে  বেরিয়ে যেতে পারবে বৃটেন৷  

আরআর/এসিবি (রয়টার্স,এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন