ব্রিটেনে পিতা ২৫ বছর ধরে ধর্ষণ করেছে দুই মেয়েকে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 11.03.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

ব্রিটেনে পিতা ২৫ বছর ধরে ধর্ষণ করেছে দুই মেয়েকে

পাঠকদের নিশ্চয় অষ্ট্রিয়ার ইওজেফ ফ্রিৎসেলের কথা মনে আছে, যে তার নিজের মেয়েকে টানা ২৪ বছর ধরে ধর্ষণ করেছিল৷

ছবিটি অষ্ট্রিয়ার ফ্রিৎসেলের, তবে এবার সব্ধান পাওয়া গেছে ব্রিটেনের ফ্রিৎসেলের

ছবিটি অষ্ট্রিয়ার ফ্রিৎসেলের, তবে এবার সব্ধান পাওয়া গেছে ব্রিটেনের ফ্রিৎসেলের

এবার একই ধরণের ঘটনার খবর বেরোল ব্রিটেনে৷ তবে এবার একজন নয়, দু-দু'জন মেয়েকে ২৫ বছর ধরে ধর্ষণ করেছে তাদের ৫৬ বছর বয়সি বাবা৷ এসময়ে মোট ১৮ বার গর্ভধারণের ঘটনাও ঘটেছে৷ তবে বাবার সঙ্গে দুই মেয়ের সন্তানের সংখ্যা সাত৷

বুধবার শেফিল্ডের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের এক রিভিউ প্রতিবেদনে ঘটনাটি প্রকাশ পেয়েছে৷ আইনগত কারণে বাবার নাম প্রকাশ করা হয়নি৷ তবে কর্তৃপক্ষ ধারাবাহিক ধর্ষণের হাত থেকে মেয়ে দু'জনকে রক্ষা করতে না পারায় তাদের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা প্রার্থণা করেছে৷

শেফিল্ড সেফগার্ডিং চিলড্রেন বোর্ডের প্রধান সু ফিনেস বলেছেন, তাঁরা ঐ দু'জনকে রক্ষা করতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছেন৷

ধর্ষণের ঘটনা প্রথম শুরু হয় ১৯৮১ সালে৷ তখন একজনের বয়স ছিল আট আর অন্যজনের দশ৷ প্রথম দিকে প্রতিদিনই তাদের ধর্ষণ করা হতো৷ পরে এই সংখ্যা সপ্তাহে দুই-তিনদিনে নেমে আসে বলে ঐ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে৷

যদি তারা তাদের বাবাকে ঐ কাজে প্রতিহত করতে চাইতো তাহলে তাদের মারধর করা হতো, এমনকি কখনো কখনো আগুনের শিখার কাছে তাদের নিয়ে যাওয়া হতো৷

ঘটনা যেন কেউ বুঝতে না পারে সেজন্য এই পরিবার মোট ৬৭ বার বাসা বদল করেছে বলে ঐ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে৷

ব্রিটেনের শিশুবিষয়ক মন্ত্রী এড বলস্ এটাকে ভয়ঙ্কর বলে আখ্যায়িত করেছেন এবং বলেছেন, এধরণের ঘটনা অবশ্যই প্রতিরোধ করা উচিত ছিল৷ তিনি বলেন, অনেকের মত তাঁরও এটা বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে যে, একজন পিতা কিভাবে তার মেয়েদের সঙ্গে এধরণের কাজ করতে পারে৷

প্রতিবেদক : জাহিদুল হক

সম্পাদনা : হোসাইন আব্দুল হাই

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন