ব্যায়াম না করায় প্রাপ্তবয়স্কদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে | বিশ্ব | DW | 05.09.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ব্যায়াম না করায় প্রাপ্তবয়স্কদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে

পর্যাপ্ত শরীর চর্চা না করায় বিশ্বের এক দশমিক চার বিলিয়ন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছেন৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নতুন এক গবেষণা থেকে জানা গেছে এই তথ্য৷

গত ১৫ বছরে বিশ্বে নারী ও পুরুষের শারীরিক কর্মকাণ্ডের দিক থেকে তেমন কোনো পরিবর্তন হয়নি৷ ২০১৬ সালে বিশ্বের এক চতুর্থাংশের বেশি প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ পর্যাপ্ত ব্যায়াম করেননি৷ ‘দ্য ল্যানসেট গ্লোবাল হেল্ফ জার্নাল'-এ বুধবার প্রকাশিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) এক গবেষণায় এসব তথ্য প্রকাশিত হয়েছে৷

একজন প্রাপ্তবয়স্কের সপ্তাহে অন্তত ১৫০ মিনিট ব্যায়াম করা উচিত৷ কিন্তু ২০১৬ সালে বিশ্বের ৩২ শতাংশ নারী এবং ২৩ শতাংশ পুরুষ গড়ে প্রতি সপ্তাহে সেই পরিমাণ শারীরিক চর্চা করেননি৷ ফলে, বিশ্বের এক চতুর্থাংশ প্রাপ্তবয়স্কের টাইপ টু ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, ডিমেনশিয়া এবং ক্যানসারের ঝুঁকি, যারা নিয়মিত শারীরিক চর্চা করেন, তাদের চেয়ে বেশি রয়েছে৷

বিশ্বের ১৬৮ দেশের আনুমানিক প্রায় বিশ লাখ লোক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জরিপে অংশ নিয়েছেন৷ তারা গবেষকদের তাদের নিত্যদিনের কর্মকাণ্ডের ব্যাখ্যা করেছেন, যেখান থেকে তারা কতটা শারীর চর্চা বা ব্যায়াম করেছেন, তা বের করা হয়েছে৷ এক্ষেত্রে একজন মানুষ কর্মস্থলে, বাসায়, অবসর সময়ে এবং যানবাহনে কী ধরনের শারীরিক কর্মকাণ্ড করেছে, তা বিবেচনায় আনা হয়েছে৷ বৈশ্বিক শারীরিক চর্চা সম্পর্কে ধারণা পেতে এরকম গবেষণা এটাই প্রথম৷

২০০১ থেকে ২০১৬ সাল অবধি সময়ে পরিচালিত গবেষণায় দেখা গেছে, উন্নত দেশের মানুষেরা উন্নয়নশীল দেশের মানুষদের তুলনায় শারীরিক কর্মকাণ্ডের দিক থেকে অনেকটা পিছিয়ে রয়েছেন৷ বিশেষ করে যেসব অঞ্চলে মানুষের আয় রোজগার বেশি, সেসব অঞ্চলে ব্যায়াম করার হার কম৷

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, পূর্ব এবং দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলো ছাড়া বিশ্বের অন্যান্য দেশে স্বাস্থ্যচর্চার দিক থেকে পুরুষের তুলনায় নারীরা অনেক পিছিয়ে রয়েছেন৷ 

লারিসা ভার্নেক/এআই 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন