‘ব্যক্তির অপরাধে দুদককে কাঠগড়ায় তোলা ঠিক না’ | আলাপ | DW | 14.06.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সাক্ষাৎকার

‘ব্যক্তির অপরাধে দুদককে কাঠগড়ায় তোলা ঠিক না’

দেশে কি দুর্নীতি বাড়ছে না, কমছে? দুদক যেখানে নিজেরাই কাঠগড়ায়, সেখানে কিভাবে নিয়ন্ত্রণ হবে দুর্নীতি? এসব নিয়ে ডয়চে ভেলের সঙ্গে কথা বলেছেন দুদকের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান৷

ডয়চে ভেলে : পুলিশ কর্মকর্তার কাছ থেকে উপ-পরিচালকের ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে এখন তো দুদকই কাঠগড়ায়, কী বলেন?

গোলাম রহমান : যে কেউ যে কোন কিছু ভাবতে পারেন৷ কিন্তু আমরা যে সমাজে বাস করি সেখানে ভালো লোক আছেন, মন্দ লোক আছেন৷ দুর্নীতি দমন কমিশনসহ সব প্রতিষ্ঠানে যারা নিয়োগ লাভ করছেন তারা তো এই সমাজ থেকেই আসছেন৷ তাই মন্দ লোক যদি ঢুকে পড়ে সেটা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা দরকার৷ মনিটরিং করতে হবে যাতে কেউ অপকর্ম করতে না পারে৷ তবে একবারে সবাইকে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে সেটা ভাবা ঠিক নয়৷দুদক তখনই কাঠগড়ায় দাঁড়াবে- যদি প্রমান হয় এই ব্যক্তি এই অপকর্ম করেছেন তারপরও যদি তাকে অনুকম্পা দেখানো হয়৷ অতীতেও দুদকের বহু মানুষ শাস্তি পেয়েছেন, ভবিষ্যতেও পাবে৷

দেশে দুর্নীতির সার্বিক অবস্থা যদি একটু বলেন?

দুর্নীতি পৃথিবীর সর্বত্র আছে৷ আপনি যে মিডিয়ায় কাজ করছেন, ওই দেশে দুর্নীতি আছে, আমাদের দেশেও দুর্নীতি আছে৷ তবে ওই সব দেশে দুর্নীতির পরিমান কম, উন্নয়নশীল দেশে একটু বেশি, এবং বাংলাদেশ তার ব্যতিক্রম নয়৷

দেশে কেন দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না?

দেশের আর্থসামাজিক অবস্থা, রাজনৈতিক অবস্থা, বিচার ব্যবস্থার দুর্বলতা, তদন্ত অনুসন্ধানে দুর্বলতাসহ হাজারও কারণ আছে৷ একদিনে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়নি, একদিনে এটা থেকে পরিত্রাণেরও পথ নেই৷

অডিও শুনুন 06:01

‘সমাজকে পরিবর্তন করলে সবকিছুর পরিবর্তন হয়ে যাবে’

দুদক আইনের সমস্যা, না বাস্তবায়নের ?

আইনে কোন সমস্যা আছে বলে আমার মনে হয় না৷ আমি যখন ছিলাম তখন যে আইন ছিল সেটাকে আমি পরিপূর্ণ বলেই মনে করি৷ আর বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বলব, সার্বিক যে পরিস্থিতি তাতে দুদকের একার পক্ষে দুর্নীতি দমন করা সম্ভব নয়৷ কোন দেশেই এটা সম্ভব হয়নি৷ আবার সব দুর্নীতি কিন্তু দুর্নীতি দমন কমিশনের আওতায় আসেও না৷ শুধুমাত্র দুদকের সিডিউলভুক্ত যে অপরাধগুলো সেগুলোই তারা দেখতে পারে৷

দুদক চাইলে কি দুর্নীতির ব্যাপারে আরো কঠোর হতে পারে না?

যারা এখন কাজ করছেন, তারা নিশ্চয় চেষ্টা করছেন, কতটুকু চেষ্টা করছেন তারাই বলতে পারবেন৷

সরকার কি দুদকের কাজে সহযোগিতা করে?

আমি যখন ছিলাম কোন ধরনের হস্তক্ষেপ দেখিনি৷ আর এখানে তো সহযোগিতার বিষয় না৷ দুদক কাজ করছে, আইন অনুসারে, এখানে সরকারের সহযোগিতার কোন বিষয় তো নেই৷ সবাই যার যার আইন অনুয়ায়ী কাজ করবে, এটাই তো রীতি৷

দেশে দুর্নীতি কমছে, না বাড়ছে?

আমি তো সরাসরি সম্পৃক্ত না, তাই বলা ঠিক হবে না৷ তবে পত্রপত্রিকার যে খবর দেখি তাতে মনে হয়, আগে যেমন ছিল তেমনি আছে৷

তাহলে কেন দুর্নীতি দমন করা যাচ্ছে না?

সবার যদি আন্তরিকতা থাকে তাহলে অবশ্যই দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণে আসবে৷ মানুষের নীতি নৈতিকতা যদি থাকে তাহলে দ্রুত উন্নতি হবে, আর যদি ঘাটতি থাকে তাহলে উন্নতি হবে ধীরগতিতে৷

দুর্নীতি কমাতে আপনার পরামর্শ কি? 

সমাজকে পরিবর্তন করলে সবকিছুর পরিবর্তন হয়ে যাবে৷

কাজটা কে করবে?

এটা খুবই কঠিন কাজ, এটা সবাই মিলে করতে হবে৷ আমি দুর্নীতি করব, আবার দমন করব, এটা তো হয় না৷ এটা একটা সার্বিক সমস্যা, এর এক লাইনে কোন উত্তর নেই৷

তাহলে কি এই অবস্থা চলতেই থাকবে?

এই অবস্থা চলবে না৷ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে অবস্থার পরিবর্তন হবে এবং উন্নতি হবে৷

সরকারি কর্মচারীদের এখন গ্রেফতার করতে হলে তো সরকারের অনুমতি লাগবে?  

এটা আইনের সঙ্গে বা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক৷ আগেও এমন আইন হয়েছিল, আদালত নাকচ করে দিয়েছেন৷ কেউ এটা নিয়ে উচ্চ আদালতে গেলে এটাও নাকচ হয়ে যাবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন