‘ব্যক্তিগত’ গাড়িতে ঈদযাত্রায় ছাড় | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 22.05.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

‘ব্যক্তিগত’ গাড়িতে ঈদযাত্রায় ছাড়

গণপরিবহন বন্ধ রাখলেও ব্যক্তিগত বাহনে ঈদ যাত্রায় ছাড় দিয়েছে বাংলাদেশের সরকার৷ তবে এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ‘জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির’ একজন সদস্য৷

সাম্প্রতিক ছবি

সাম্প্রতিক ছবি

সরকারের মৌখিক নির্দেশনার বিষয়টি বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে নিশ্চিত করেছেন পুলিশের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা৷ তার প্রেক্ষিতে ঢাকার গাবতলী থেকে পুলিশের চেকপোস্ট তুলে নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি৷ 

পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মল্লিক ফখরুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ‘‘বাড়িতে গিয়ে যারা ঈদ করতে চেয়েছেন, সরকার তাতে সম্মতি দিয়েছেন৷ কিন্তু গণপরিবহন বন্ধ থাকবে৷ পুলিশ সড়কে নিরাপত্তা দেবে, তবে সবাইকে নিজস্ব পরিবহনে যেতে হবে৷’’

নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ শুরু করেছেন মাঠ পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তারাও৷ ঢাকার ওয়ারী অঞ্চলের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার পর্যায়ের এক কর্মকর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেছেন, ‘‘কেউ বাড়ি যেতে চাইলে যেতে পারবেন৷ তবে গণপরিবহন বন্ধ৷ তাহলে কীভাবে যাবেন, সহজেই অনুমেয়৷’’

ময়মনসিংহের ভালুকা থানার ওসি মাইন উদ্দিন বলেন, ‘‘নিজস্ব পরিবহনে যাতায়াত করা যাবে৷ তবে বাস বা গণপরিবহন ব্যবহার করে কেউ যাতায়ত করতে পারবেন না৷’’

কোন ধরনের গাড়ি নিজস্ব পরিবহনের আওতায় পড়বে এ বিষয়ে সংবাদমাধ্যমটিকে গাজীপুর জেলার এসপি মো. আলী বলেন, ‘‘রেন্ট এ কার নয়, শুধু ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে গ্রামের বাড়ি যাওয়া যাবে৷’’

তবে এ খবরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের কাছে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন করোনাভাইরাস মোকাবেলায় গঠিত ‘জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির' একজন সদস্য৷ তিনি বলেছেন, এর ফলে সারা দেশে ভাইরাস ছড়ানোর ঝুঁকি আরো বাড়বে৷

উল্লেখ্য, এর আগে সরকার ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে সবাইকে যার যার অবস্থানে থেকে ঈদ পালনের নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল৷ ১৪ মে সবশেষ ছুটির আদেশে বলা হয়েছিল, ‘‘সাধারণ ছুটি/চলাচলে নিষেধাজ্ঞার মধ্যে কেউ কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারবে না৷

‘‘উক্ত সময়ে সড়কপথে গণপরিবহন, যাত্রীবাহী নৌযান ও রেল চলাচল এবং অভ্যান্তরীণ রুটে বিমান চলাচল বন্ধ থাকবে এবং মহাসড়কে মালবাহী/জরুরি সেবায় নিয়োজিত যানবাহন ব্যতীত অন্যান্য যানবাহন কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে৷’’ সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সারাদেশে ৩০ মে পর্যন্ত গণপরিবহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞার কথা জানানো হয়৷

এফএস/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন