বেশিরভাগ জার্মানের মনে ট্রাম্পই বড় হুমকি | বিশ্ব | DW | 27.12.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

বেশিরভাগ জার্মানের মনে ট্রাম্পই বড় হুমকি

দুই হাজার জার্মানের কাছে প্রশ্ন করা হয়েছিল, বিশ্ব শান্তির প্রশ্নে কে সবচেয়ে বড় হুমকি বলে তারা মনে করেন? উত্তর কোরিয়া, রাশিয়া, চীন ও ইরানকে ছাপিয়ে সবার ওপরের নামটি ছিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প৷

জার্মানির অন্যতম ঘনিষ্ঠ বন্ধু যুক্তরাষ্ট্র হলেও সাধারণ মানুষের কাছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট খুবই অপছন্দের৷ এক জরিপে প্রশ্ন করা হয়েছিল যে, এদের কাকে আপনার বেশি ভয়ঙ্কর মনে হয়: উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং, ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতোল্লাহ আলি খামেনেই, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিন, না যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প? 

সর্বোচ্চ ৪১ ভাগ ভোট পড়েছে ট্রাম্পের দখলে৷ দ্বিতীয়তে আছেন কিম জং উন (১৭%)৷ এরপর পুটিন ও খামেনেই সমান আট শতাংশ করে৷ সবার শেষে রয়েছে চীনা প্রেসিডেন্ট, সাত ভাগ৷

জরিপটি করেছে জার্মান সংবাদ সংস্থা ডয়চে প্রেসে-আগেনট্যুর বা ডিপিএ৷ দুই হাজারেরও বেশি জার্মান নাগরিক এতে অংশ নেন৷

গত বছর জুলাইতে একইরকম আরেকটি জরিপ করেছিল যুক্তরাজ্যভিত্তিক জরিপ সংস্থা ‘ইউগভ পোল'৷ সেখানেও দেখা গেছে, জরিপে অংশ নেয়া ৪৮% জার্মান মনে করেন কিম ও পুটিনের চেয়ে ট্রাম্প বেশি ভয়ঙ্কর৷ ঐ জরিপে অবশ্য ইরান ও চীনের নেতাদের অন্তর্ভূক্ত করা হয়নি৷

আরেক সালতামামি জরিপে দেখা গেছে, জার্মানদের কাছে অন্যান্য ইউরোপীয় নেতাদের তুলনায় চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের কদর কমে গেছে৷

জার্মানির ফুঙ্কে মিডিয়া গ্রুপের গবেষণা প্রতিষ্ঠান কানতার ইনস্টিটিউটের করা এই গবেষণায় দেখা যায়, জরিপে অংশ নেয়া ৫৭ ভাগ জার্মান ফ্রেঞ্চ প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁর প্রতি বেশি আস্থা রাখেন৷ আর ৫৩% রাখেন ম্যার্কেলে৷ এমনকি খুব কম আস্থা রাখেন কার ওপর এমন প্রশ্নের জবাবে ব্যবধান আরো বেড়ে গেছে৷ ৪৪ ভাগ বলেছেন ম্যার্কেলের ওপর তাদের আস্থা সামান্য, আর ৩২ ভাগের এমন ধারণা মাক্রোঁকে নিয়ে৷ 

ট্রাম্প অবশ্য এখানেও সবার শেষে৷ জরিপে অংশগ্রহণকারীরা সবচেয়ে কম আস্থা রাখছেন তাঁর ওপর (৮৯%)৷ এরপর আছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়েপ এরদোয়ান (৮৬%) এবং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন (৭১%)৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়