বেলারুশের বিরুদ্ধে ′হাইব্রিড′ আক্রমণ চালানোর অভিযোগ | বিশ্ব | DW | 11.11.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অ্যামেরিকা

বেলারুশের বিরুদ্ধে 'হাইব্রিড' আক্রমণ চালানোর অভিযোগ

ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং অ্যামেরিকা বেলারুশের বিরুদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞা জারির সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে। হাইব্রিড আক্রমণ চালানোর অভিযোগ।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রধান উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েনের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক হয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের। সেখানে বেলারুশ নিয়ে একাধিক সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন দুই নেতা। বেলারুশ যেভাবে পোল্যান্ডে শরণার্থী ঢোকানোর চেষ্টা করছে, তাকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের উপর হাইব্রিড আক্রমণ বলে অভিযোগ করেছেন দুইজনেই। তার জেরেই লুকাশেঙ্কোর বেলারুশের বিরুদ্ধে একাধিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

পোল্যান্ড তথা ইউরোপীয় ইউনিয়ন বেশ কিছু দিন ধরেই অভিযোগ করছে, বেলারুশ ইউরোপীয় ইউনিয়নের উপর চাপ সৃষ্টির জন্যই শরণার্থীদের একটি নতুন রুট তৈরি করেছে। মূলত ইরাক থেকে আসা শরণার্থীদের বেলারুশের সীমান্ত পর্যন্ত নিয়ে যাচ্ছে দেশের পুলিশ। এরপর তাদের পোল্যান্ডে ঢোকানোর চেষ্টা হচ্ছে। সম্প্রতি এ নিয়ে সীমান্তে রীতিমতো সংঘর্ষ হয়েছে।

পোল্যান্ড, জার্মানি-সহ ইউরোপীয় ইউনিয়নের অভিযোগ, লুকাশেঙ্কোর বিরুদ্ধে ইইউ আগেই বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। তাই পাল্টা চাপ তৈরি করতে এ কাজ করছে তারা। বুধবার বাইডেন-উরসুলা বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্টও একই কথা বলেছেন। তারপরেই সিদ্ধান্ত হয়েছে, বেলারুশের উপর চাপ বাড়াতে নতুন বেশ কিছু জারি করা হবে। তবে কবে সে প্রক্রিয়া শুরু হবে, তা স্পষ্ট করা হয়নি।

বেলারুশ ছাড়াও দুই নেতার মধ্যে আরো বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ইইউ এবং অ্যামেরিকার সম্পর্ক আরো উন্নত করার কথা বলা হয়েছে। অ্যামেরিকার সঙ্গে ব্যবসা আরো বাড়ানোর আলোচনা হয়েছে। একইসঙ্গে দুই নেতাই দীর্ঘ সময় ব্যয় করেছেন বিশ্ব-উষ্ণায়নের আলোচনায়।

সম্প্রতি কপ২৬ জলবায়ু সম্মেলনে বাইডেন পরিবেশ নিয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন। এদিন উরসুলার সঙ্গে আলোচনায় ফের সে প্রসঙ্গ ওঠে। বিশ্বের তাপমাত্রা এক দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে রাখার জন্য কী কী পদক্ষেপ নেওয়া উচিত, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে দুইজনের।

বৈঠকের পর হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জানিয়েছেন, ইইউ প্রধানের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্টের ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। একাধিক বিষয় নিয়ে দুইজনে আলোচনা করেছেন। ভবিষ্যতে ইইউ এবং অ্যামেরিকার সম্পর্ক যাতে আরো ভালো হয়, তা নিয়ে কথা বলেছেন দুই নেতা।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এপি)