বেটোফেন এবং রক ও পপ সংগীত | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 15.09.2008
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

বেটোফেন এবং রক ও পপ সংগীত

২৯ আগস্ট থেকে বন শহরে শুরু হয়েছে বেটোফেন সংগীত উত্‌সব৷ চলবে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত৷ এই উপলক্ষে বর্ণাঢ্য সব সংগীত অনুষ্ঠানের সুরমূর্ছনা এখন শহরের চারিদিকে৷

বর্ণাঢ্য সব সংগীত অনুষ্ঠানের সুরমূর্ছনা এখন বন শহরের চারিদিকে

বর্ণাঢ্য সব সংগীত অনুষ্ঠানের সুরমূর্ছনা এখন বন শহরের চারিদিকে

এসব অনুষ্ঠানের প্রধান আকর্ষণই বিশ্বখ্যাত সংগীতস্রষ্টা বেটোফেনের সংগীত৷

ধ্রুপদী সংগীতপ্রেমীদের জন্য এক বিশাল ব্যাপার৷ কিন্তু আজকের আধুনিক সংগীতও যে বেটোফেনকে পাশ কাটাতে পারেনি, তা হয়তো অনেকেই জানেননা৷ নেদারল্যান্ডস-এর শিল্পী হান্স লিবার্গ তাঁর সংগীত ভিত্তিক বিভিন্ন হাস্যরসাত্মক অনুষ্ঠানে বেটোফেনের আশ্রয় নিয়েছেন৷ জার্মানীর কমেডিয়ান হেলগে শ্নাইডার-এর কৌতুক অনুষ্ঠানেও শোনা যায় পিয়ানোর জন্য বেটোফেন রচিত সুর৷ ব্রিটেন ও আমেরিকার পপ সংগীত শিল্পীরাও বেটোফেনের সংগীত গ্রহণ করেছেন সাদরে৷

আজকের আধুনিক সংগীত জগতের প্রায় প্রতিটি ধারায় লক্ষ্য করা যায় বেটোফেনের সংগীতের প্রভাব৷ ১৮১০ সালে রচিত 'ফ্যুর এলিজে' (এলিজের জন্য) বেটোফেনের অত্যন্ত জনপ্রিয় এক সংগীতাংশ৷৷ পিয়ানো শিক্ষার্থীরা অনুশীলনের জন্য প্রায়ই বেছে নেন এই রচনাটি৷ কেননা বারবার একই ধরনের সুরের পুনরাবৃত্তি হওয়ায় এই সংগীত সহজেই বাজানো যায়৷

Cairo Conservatory of Music Orchestra

সংগীত গোষ্ঠীগুলো বেটোফেনের সংগীত গ্রহণ করেছে এক এক ভাবে

জার্মান টেলিভিশনের ডিটেকটিভ ছবির চিত্রনাট্যকারদেরও মুগ্ধ করেছে এই সংগীত৷ ফরাসী পিয়ানো বাদক রিশার্ড ক্লাইডারম্যান, যিনি ৮০ দশকে প্রায়ই জার্মান টিভিতে অংশ গ্রহণ করতেন, তাঁরও পছন্দের সংগীত 'এলিজের জন্য'৷ ইতালীয় গায়ক আলিস বেটোফেনের সংগীত পরিবেশন করেই পেয়েছেন বিশেষ স্বীকৃতি৷

এমনকি আধুনিক হিপহপ সংগীতধারাও নিজেদের জন্য আবিষ্কার করেছে বেটোফেনের সংগীত৷ মিলিয়েছে নিজেদের সংগীতের সংগে৷ আধুনিক সংগীতের সংগে ধ্রুপদী সংগীতের মিশ্রণ ৯০এর দশকে বিশেষভাবে লক্ষ্য করা যায়৷ ধ্রুপদী সংগীতের স্বত্বাধিকার অনেক আগেই শেষ হয়ে যাওয়ায় আধুনিক সংগীত শিল্পীরা বিনামূল্যেই তা ব্যবহার করতে পারছেন৷ এক্ষেত্রে আমেরিকার রেপার সংগীত শিল্পীরাও পিছিয়ে নেই৷ সমাজ সচেতনতামূলক বার্তা শ্রোতাদের কাছে তাঁরা পৌঁছে দিচ্ছেন বেটোফেনের সাহায্যে৷

উচ্চাঙ্গ সংগীতের সাংবাদিক অলিভার বুসলাউ এ প্রসঙ্গে বলেন, ধ্রুপদী সংগীতে প্রচ্ছন্ন থাকে এক ধরনের বিদ্রোহের ভাব, আর তাই পপ সংগীতের সঙ্গে খাপ খেয়ে যায় তা৷ তিনি বলেন, বেটোফেনই ছিলেন প্রথম সংগীতস্রষ্টা, যাঁর চিন্তাধারা ছিল আজকের শিল্পীদের মতই৷ বুসলাউ এ প্রসঙ্গে বেটোফেনের একটি মন্তব্য তুলে ধরেন৷ বেটোফেন একসময় বলেছিলেন, 'আমি আমার কাজ করি নির্দ্বিধায়, কোনো নিয়ম কানুনের ধার ধারিনা৷ জনসাধারণ কি চায় তাতে আমার আগ্রহ নেই৷ আমি কাজ করি আমার ইচ্ছেমত'৷ বেটোফেনের আগে সংগীত শিল্পী, চিত্র শিল্পী এবং স্থপতিদের রাজা রাজড়াদের নির্দেশে কাজ করতে হত৷ যেমনটি করতে হয়েছে মোত্‌সার্টকেও৷ অনেক সময় নিজের ইচ্ছা বাস্তবায়িত করতে পারতেননা সেই আমলের শিল্পীরা৷ আজকের শিল্পীরা যে স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছেন, তার পথ প্রদর্শক ছিলেন বেটোফেন৷

ব্রিটিশ ইলেকট্রিক লাইট অর্কেস্ট্রা তাদের বিভিন্ন সংগীতে বেটোফেনের সিম্ফনি ব্যবহার করেছে৷এ প্রসঙ্গে অলিভার বুসলাউ বলেন, স্বাভাবিকভাবেই বেটোফেনের সংগীতের মাধুর্য তুলে ধরতে পারেনি এই অর্কেস্ট্রা৷ আসল কথা হল, শ্রোতাদের বোঝানো যে, আমরা এমন এক সংগীত উপস্থাপন করছি যার সঙ্গে বেটোফেনের সম্পৃক্ততা আছে৷

অনেক নৃত্য ও পপ সংগীত গোষ্ঠী সাদরে গ্রহণ করেছে বেটোফেনের সুর৷ এই সূত্রে অলিভার বুসলাউ-এর মন্তব্যঃ পপ গানে ছোট ছোট সংগীতাংশ বার বার ঘুরে আসে, তাই বেটোফেনের সংগীত খাপ খেয়ে যায় পপের সঙ্গেও৷

জার্মানির ডুসেলডর্ফ শহরের একটি নামকরা পাংক সংগীত গোষ্ঠী ' টোটে হোজে' তাদের জনপ্রিয় একটি গানে ব্যবহার করেছে বেটোফেনের নবম সিম্ফনি৷ হয়তো বা বেটোফেনের সংগীতের জন্যই টোটে হোজে সংগীত গোষ্ঠী হঠাত্ মানুষের নজরে পড়ে৷ মান সম্মানও বেড়ে যায় তাদের৷ এই গোষ্ঠীর অন্যতম শিল্পী কাম্পিনো বলেনঃ এর পর থেকে আর পেছনে ফেরা নয়, শুধু সামনে এগিয়ে চলা৷ সমালোচকদের কাছেও আমাদের গুরুত্ব বেড়ে যায়৷

পাংক সংগীত গোষ্ঠী ছাড়াও বেশ কয়েকটি হার্ডরক এবং টেকনো ব্যান্ড নিজেদের সংগীতে যুক্ত করেছে বেটোফেনের সুর ও লয়৷ তবে সংগীত গোষ্ঠীগুলো বেটোফেনের সংগীত গ্রহণ করেছে এক এক ভাবে৷ ব্যাখ্যা দিয়েছে বিভিন্নরকম৷ যেমন কোনো গোষ্ঠী বাদ দিয়েছে নবম সিম্ফনির নাটকীয় সংগীতাংশটি৷ বুসলাউ বলেনঃ সংগীতের মূল অংশ বাদ দিয়ে অর্কেস্ট্রার কোমল সুরধ্বনি শ্রোতাদের হয়তো শুনতে ভালই লাগবে৷ কিন্তু বেটোফেনের প্রতি সুবিচার করা হয়না এতে৷ মানুষ হয়তো হালকা সুর উপভোগ করবে৷ কিন্তু বেটোফেনের আসল সংগীতের সঙ্গে তার দূরত্ব অনেকখানি৷

সংশ্লিষ্ট বিষয়