বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধে আপত্তি নেই প্রধানমন্ত্রীর | বিশ্ব | DW | 09.10.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধে আপত্তি নেই প্রধানমন্ত্রীর

ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ না করার পক্ষে নিজের অবস্থান ব্যক্ত করে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) প্রশাসন চাইলে তাদের ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে পারে৷

Premierministerin Bangladesch Scheich Hasina (picture-alliance/Photoshot)

ফাইল ফটো

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে অংশগ্রহণ এবং ভারত সফর নিয়ে বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি৷

শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘এখন এই যে একট সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটেছে, অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই তো সংগঠন করা নিষিদ্ধ আছে, বুয়েট যদি মনে করে তারা সেটা নিষিদ্ধ করে দিতে পারে,  এটা তাদের উপর৷ কিন্তু একেবারে ছাত্র রাজনীতি ব্যান করে দিতে হবে, এটা তো মিলিটারি ডিকটেটরদের কথা৷''

ছাত্র রাজনীতি থেকে নেতৃত্ব তৈরি হওয়ার প্রসঙ্গ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘একটা ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি উঠবে ছাত্র রাজনীতি ব্যানড? যেহেতু নিজেই ছাত্র রাজনীতি করে এসেছি, সেখানে আমরা ছাত্র রাজনীতি ব্যান বলব কেন? কোনো প্রতিষ্ঠান যদি করতে চায় সেটা করতে পারে৷''

ছাত্রলীগ সব সময় আলাদা ও স্বাধীন সংগঠন হিসেবে ছিল উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে প্রত্যেকটা রাজনৈতিক দল, কমিউটিস্ট পার্টি বাদে... যেহেতু তারা ছাত্র, তাদের গাইডলাইন দিতে হয়, মূল দল তো দেবেই৷ কারণ এটা নীতি আদর্শের ব্যাপার৷

‘‘নষ্ট পলিটিক্স আইয়ুব খান শুরু করে দিয়েছিল, জিয়াউর রহমান আবার শুরু করে একইভাবে৷ দুজনের ক্ষমতা দখলের চরিত্র একই রকম৷ আমাদের গঠনতন্ত্রে আপনারা দেখবেন, কোন কোন দল আমাদের সহযোগী সংগঠন তার তালিকা আছে, কিন্তু অঙ্গ সংগঠন বলে কোনোটা নেই৷ ছাত্রলীগ কিন্তু আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠন না৷ ছাত্র সংগঠন, আলাদা সংগঠন৷''

প্রধানমন্ত্রীর ভাষ্য, ‘‘ছাত্র রাজনীতি ব্যানের কথা বলেন, আসলে এদেশে প্রতিটি সংগ্রামের অগ্রণী ভূমিকা কিন্তু ছাত্ররাই নিয়েছে, সেই ছাত্রলীগ করা থেকেই কিন্তু আমাদের ভাষা আন্দোলন৷ ''

বুয়েটের শিক্ষার্থীরা বেশ কয়েকটি দাবি আদায়ে আন্দোলন করছেন, সেসব দাবির মধ্যে ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিও রয়েছে৷

এসআই/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন