বুয়েটের আন্দোলন আপাতত স্থগিত | বিশ্ব | DW | 15.10.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

বুয়েটের আন্দোলন আপাতত স্থগিত

প্রশাসনের তৎপরতায় মাঠ পর্যায়ের আন্দোলন থেকে সরে এসেছেন বুয়েটের শিক্ষার্থীরা৷ তবে আবরার ফাহাদের খুনিদের বুয়েট থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার না করা পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নেবেন না তারা৷

মঙ্গলবার বিকালে বুয়েট শহীদ মিনারে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের একজন বলেন, ‘‘বুধবার বুয়েটের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে এক গণশপথে ক্যাম্পাসে সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দেওয়ার বিষয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হবেন তারা৷ আর এর মধ্য দিয়েই তাদের মাঠের আন্দোলনের আপাতত ইতি টানা হবে৷

‘‘খুব স্পষ্টভাবে আমরা বলতে চাই, মাঠ পর্যায়ে যে আন্দোলন, তার আপাতত ইতি টানলেও আমরা অবশ্যই সার্বক্ষণিকভাবে পর্যবেক্ষণ করতে থাকব, আমাদের দাবিদাওয়াগুলোর যথাযথ বাস্তবায়ন প্রশাসন নিশ্চিত করছে কি না৷ এবং ফাইনালি, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা (আবরার হত্যা মামলার) চার্জশিট দাখিলের পর সেটার ভিত্তিতে অপরাধীদের অ্যাকাডেমিকভাবে স্থায়ী বহিষ্কার হওয়ার আগ পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষার্থীরা কোনো রকম অ্যাকাডেমিক কার্যক্রমে অংশ নেবে না৷’’

বুয়েটের তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে গত ৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে কয়েক ঘণ্টা ধরে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়৷

বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ একদল নেতা-কর্মী শিবির সন্দেহে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে ছাত্রলীগের তদন্তেও উঠে আসে৷ আসামিদের জবানবন্দির বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে পুলিশও একই কথা বলছে৷ আবরারকে হত্যার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, এর মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৫ জন৷

আবরারের হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শেষে আগামী মাসে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হতে পারে বলে এর মধ্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার মো. মনিরুল ইসলাম৷

এসআই/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন