বুলবুলে ছয় জনের মৃত্যু, নিখোঁজ ৩৬ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 10.11.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

বুলবুলে ছয় জনের মৃত্যু, নিখোঁজ ৩৬

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল দুর্বল হয়ে পরিণত হয়েছে গভীর স্থল নিম্নচাপে৷ বৃষ্টি ঝরিয়ে সেটি ক্রমশ দুর্বল হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর৷ নামিয়ে আনা হয়েছে বিপদ সংকেতও৷

উপকূলে বুলবুলের আঘাতে ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছেন ৩০ জন৷ সেই সঙ্গে নিখোঁজ রয়েছেন ৩৬ জেলে৷ ছয় হাজার বাড়ি আংশিক বা পুরোপুরি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে৷ স্থানীয় কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এই তথ্য প্রকাশ করেছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স৷ 

প্রাণ হারানো ছয়জনের পাঁচজনই গাছ পড়ে মারা গেছেন৷ তাদের মধ্যে ৫২ বছর বয়সি এক নারীও রয়েছেন৷ রোববার তিনি আশ্রয়কেন্দ্র থেকে ঘরে ফিরে গিলে এই দুর্ঘটনার শিকার হন৷ এছাড়াও মৃতদের মধ্যে ৬০ বছর বয়সী একজন জেলে আছেন, যিনি আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে রাজি হননি৷ 

ভোলা জেলার জনপ্রতিনিধি আনোয়ার উদ্দীন রয়টার্সকে জানান, সেখানকার দু’টি মাছ ধরার নৌকা সাগর থেকে ফিরে আসেনি৷ পরিবারের সদস্যরা তাদের সঙ্গে কোন যোগাযোগ করতে পারেনি৷ 

এদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের বিপদ এখন অনেকটাই কেটে গেছে৷ উপকূল অতিক্রম করার পর সেটি ক্রমশ দুর্বল হয়ে পরিণত হয়েছে গভীর স্থল নিম্নচাপে৷ মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর৷ সেই সঙ্গে চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরের পূর্বের নয় নম্বর মহাবিপদ সংকেত এবং কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরের চার নম্বর সংকেতও নামিয়ে আনতে বলা হয়েছে৷ আবহাওয়া অফিস বলছে, গভীর নিম্নচাপের প্রভাবে চট্টগ্রাম, নোয়াখালী , লক্ষীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কুমিল্লা, সিলেট ও ময়মনসিংহ জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে৷ সেই সঙ্গে থাকতে পারে ঘন্টায় ৫০-৬০ কিলিমিটার বেগের ঝড়ো হাওয়া৷

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামসুদ্দিন আহমেদ রোববার সকাল ১০টায় এক ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘‘বুলবুল এখন স্থল নিম্নচাপ হিসাবে অবস্থান করছে বাগেরহাট, পটুয়াখালী ও খুলনা এলাকায়৷ আমরা স্বাভাবিকের দিকে যাচ্ছি৷ ১০০ কিলোমিটার বেগের ঝড় এসে একেবারে ক্ষয়ক্ষতি হয়ে যাবে তেমন আশঙ্কা আর নেই৷ তবে পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হতে ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টা লাগতে পারে৷''

এর আগে শনিবার রাত নয়টায় পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার সাগর দ্বীপ উপকূলে আঘাত হানে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় বুলবুল৷ এসময় সেখানে বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১১৫ কিলোমিটার থেকে ১২৫ কিলোমিটার৷ রোববার ভোর ৫টার দিকে বুলবুল বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে পৌঁছায়৷ ঘূর্ণিঝড়ের কারণে শনিবার রাত পর্যন্ত যে ২১ লাখ মানুষকে উপকূলীয় অঞ্চলের ৫ হাজার ৫৮৮টি আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছিল৷ তারা ধীরে ধীরে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছেন বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মহসিন৷

এদিকে, দমকা হাওয়ায় গাছ চাপা পড়ে খুলনা ও পটুয়াখালীতে তিনজনের এবং বরগুনা সদর উপজেলায় একটি আশ্রয়কেন্দ্রে অসুস্থ হয়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে বলে বিডিনিউজটোয়েন্টিফোরডটকম তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে৷

এফএস/এআই (আবহাওয়া অধিদপ্তর, রয়টার্স, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন