বুলগেরিয়ায় জিপসিদের ‘বিয়ের মেলা’ | জার্মানি ইউরোপ | DW | 31.03.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি ইউরোপ

বুলগেরিয়ায় জিপসিদের ‘বিয়ের মেলা’

বুলগেরিয়ায় রোমা উপজাতির প্রায় ১৮,০০০ মানুষের বাস৷ রোমারা বলে তারা নাকি ভারতীয় বংশোদ্ভূত৷ এরা ভবঘুরে উপজাতি অথবা জিপসি৷ এদের কন্যা পাত্রস্থ করার পদ্ধতিও কিছুটা আলাদা৷

এপি সংবাদ সংস্থার সংবাদদাতা গ্রেগরি কাটস্ বুলগেরিয়ার স্টারা জাগোরায় গিয়ে এক অদ্ভূত দৃশ্য দেখেন৷ যত্রতত্র ময়লা ফেলা এক গাড়ি রাখার জায়গায় রোমা সম্প্রদায়ের বিয়ের মেলা বসেছে৷ মাইকে জিপসি পপ গান বাজছে৷ তালে তালে নাচছে ছেলেরা আর মেয়েরা৷ তাদের বাবা-মায়েরা এদিক-সেদিক দাঁড়িয়ে বিষয়আশয়ের দিকটা স্থির করার জন্য পরস্পরের সঙ্গে গুরুগম্ভীর গলায় কথাবার্তা বলছেন৷

জিপসি মেয়েদের দেখলে আবার জিপসি সমাজকে রক্ষণশীল ভাবার কোনো উপায় নেই৷ অনেকের হয়ত ১৫ বছর বয়সই হয়নি, কিন্তু পরনে মিনিস্কার্ট অথবা মিনিড্রেস৷ সে ড্রেসের রংও আবার ইলেকট্রিক পিংক, টকটকে লাল কিংবা কটকটে হলদে, কোনো চকচকে সিন্থেটিক কাপড় দিয়ে তৈরি৷

মেয়েদের আবার সেই অনুপাতে মেক-আপ, মাস্কারা, কাঁচের গয়না, হাই হিলস৷ ছেলেরা টাইট ব্ল্যাক জিনস আর কালো লেদার জ্যাকেট পরে৷ যে হাজার দু'য়েক মানুষ এই বিয়ের মেলায় এসেছেন তাদের অনেকেই গাড়ির ওপর মাইক বসিয়ে জিপসি পপ বাজাচ্ছেন৷ গাড়ির ওপরেই হয়ত ছেলেরা আর মেয়েরা পাশাপাশি অঙ্গভঙ্গি করে নাচছে৷

Hochzeitsfeier in Bulgarien

বাজছে বিয়ের বাদ্য

মেয়েরা কিন্তু জানে, আজ তারা কোনো ছেলের মনে না ধরলে এখানে আসাটাই বৃথা৷ মায়েরা আবার খেয়াল রাখছেন, ড্রেসের হেমটা যেন বড় বেশি উঠে না যায়৷ মনে রাখতে হবে, রোমারা কিন্তু আসলে খুবই রক্ষণশীল, কিশোর-তরুণ ছেলেমেয়েদের পরস্পরের সঙ্গে মেলামেশার বিশেষ সুযোগ নেই৷

রোমাদের বুলগেরিয়ায় বলে কালাইঝি৷ রোমারা আবার গোঁড়া সনাতনপন্থি খ্রিষ্টান৷ ১৫ বছর হবার আগেই, কিংবা তারও আগে মেয়েদের স্কুল ছাড়িয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে থাকে, যা-তে তারা ছেলেদের সঙ্গে মেলামেশা না করতে পারে৷ বিয়ের মেলাতেও মেয়েরা ছেলেদের সঙ্গে নাচার এবং আলাপ করার সুযোগ পায় বটে, কিন্তু ছেলেটির পরিবারকে চেনারও সুযোগ পায়৷

মেলা শুরু হয় একটি ভদ্র, সভ্য নাচ দিয়ে: ছেলেরা একদিকে নাচে, মেয়েরা আরেকদিকে৷ মাঝে মাঝে হয়ত একবার হ্যান্ডশেক৷ কিন্তু আদতে এই বিয়ের মেলা ছিল একটি গরু-ভেড়া কেনাবেচার বাজারের পাশেই৷ এক প্রজন্ম আগে নাকি হবু কনেদের মঞ্চে উঠে দাঁড়াতে হতো, আর সেখান থেকেই তাদের নিলেম করা হতো!

হ্যাঁ, রোমাদের মধ্যে বরের পরিবারকেই নগদ মূল্যে কনেটিকে কিনতে হয়: তিন থেকে সাড়ে তিন হাজার ডলার, যদিও দাম নাকি এখন একটু পড়েছে৷ মেলাও তো হয় বছরে দু'বার৷ ছেলে-মেয়েদের এই বিয়ের মেলায় আসতে ভালোই লাগে৷ ইন্টারনেট কি ফেসবুকে চ্যাট করা যায় বটে, কিন্তু সরাসরি আলাপ কিংবা পাশাপাশি কোমর দুলিয়ে নাচতে পারা যায় কি? বাকিটা তো বাবামায়েরাই দেখছেন, কাজেই নিরাপদও বটে...

এসি/ডিজি (এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন