বীর শহিদদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে জাতি | বিশ্ব | DW | 14.12.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

বীর শহিদদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে জাতি

বুদ্ধিজীবী স্মতিসৌধে ফুল দেয়ার পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম দাবি করেছেন, যুদ্ধাপরাধের বিচার ঠেকাতে জামায়াত-শিবির চক্র আবারও গণহত্যার পরিকল্পনা করছে৷ গড়ছে অস্ত্রের মজুদ৷

শ্রদ্ধাভরে জাতি আজ স্মরণ করেছে বীর শহিদদের৷ নানা বয়সের হাজারো মানুষ আজ তাই জড়ো হয়েছিলেন বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে৷ তাদের সবার একটাই দাবি, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চাই৷ পরাজয় নিশ্চিত জেনে পাকিস্তানি বাহিনী ১৯৭১ সালের এই দিনে হত্যাযজ্ঞ শুরু করে৷ যার উদ্দেশ্য ছিল জাতিকে মেধা শূন্য করা৷ আর স্বাধীনতার পর যেন বাংলাদেশ মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে না পারে৷

মিরপুরের শহিদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে সকাল ৮টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন৷ পুষ্পস্তবক অর্পণের পর, প্রধানমন্ত্রী দেশের এই কীর্তিমান সন্তানদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে কিছু সময়ের জন্যে সেখানে নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন৷ এ সময় বিউগলে বেজে উঠে করুন সুর৷

এরপর সর্বসাধারণের জন্য স্মৃতিসৌধ উন্মুক্ত করে দেয়া হয়৷ সকাল ৯টায় বিরোধী দলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন৷ স্মৃতিসৌধে আসেন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধারাও৷

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম দলের পক্ষে ফুল দেয়ার পর বলেন, সবচেয়ে আতঙ্কের কথা৷ তিনি জানান, সরকারের কাছে তথ্য রয়েছে যুদ্ধপরাধের বিচার ঠেকাতে জামায়াত-শিবির চক্র আবারও গণহত্যার পরিকল্পনা করছে৷ গড়ছে অস্ত্রের মজুদ৷

বিএনপি নেতারাও অবশ্য বলেন যে, তারাও যুদ্ধাপরাধের বিচার চান৷ তবে তা হতে হবে স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ ও আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ৷ বিএনপি'র স্থায়ী কমিটির দুই সদস্য তরিকুল ইসলাম ও মওদুদ আহমেদ দলের পক্ষে স্মৃতিসৌধে ফুল দেয়ার পর তাদের প্রতিক্রিয়ায় এমন কথাই শোনান৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন