বিশ্বকাপের প্রথম তিন ম্যাচ নিয়ে চিন্তিত মাশরাফী | বিশ্ব | DW | 19.08.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

খেলাধুলা

বিশ্বকাপের প্রথম তিন ম্যাচ নিয়ে চিন্তিত মাশরাফী

পরিবারের সঙ্গে কয়েক দিন কাটিয়ে বুধবার লন্ডন গেলেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফী৷ যাওয়ার আগে সমর্থকদের একটু রয়েসয়ে স্বপ্ন দেখতে বললেন৷

প্রায় মাসখানেক আগে দলের সঙ্গে ইংল্যান্ড যাওয়ার সময়  মাশরাফি বলেছিলেন,  বিশ্বকাপে টাইগারদের লক্ষ্য সেমিফাইনালে ওঠা৷ সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো ত্রিদেশীয় কোনো টুর্নামেন্ট জেতার পর টাইগারদের নিয়ে সমর্থকদের প্রত্যাশা আরো বেড়েছে৷ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় মাশরাফিও তা স্বীকার করেছেন৷ তবে সেই সঙ্গে বিশ্বকাপের শুরুর তিন ম্যাচ যে বাংলাদেশের জন্য বেশ কঠিন সেটিও মনে করিয়ে দিয়েছেন তিনি৷ ‘‘আমাদের জন্য কঠিন হবে, কারণ, প্রথম তিন ম্যাচের প্রতিপক্ষ খুবই কঠিন,'' বলেন মাশরাফি৷

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে৷ পরের দুটি ম্যাচ নিউজিল্যান্ড (৫ জুন) ও ইংল্যান্ডের (৮ জুন) বিপক্ষে৷

এই ম্যাচগুলো সম্পর্কে মাশরাফি বলেন, ‘‘তাদের বিরুদ্ধে ইতিবাচক ফলাফল পাওয়া সহজ হবে না৷''

ইংল্যান্ডের মাটিতে অনেক রান ওঠার বিষয়টিও মঙ্গলবার উল্লেখ করেন টাইগার অধিনায়ক৷ ‘‘আপনি যদি ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ফলো করেন, দেখবেন সেখানে অনেক রান হয়৷ ফলে (খেলতে) অন্যরকম অ্যাপ্রোচের প্রয়োজন হবে,'' বলেন তিনি৷

বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত মাত্র তিনবার ৩০০-র বেশি রান তাড়া করে জয় পেয়েছে৷ এর মধ্যে দুটি জিম্বাবোয়ে ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে৷ অন্যটি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে৷

মাশরাফি বলেন, ‘‘দেখেছেন, আমরা ৩২০ কিংবা ৩৪০ রান তাড়া করতে অভ্যস্ত নই৷ অন্যদিকে, আমরা নিয়মিত প্রতিপক্ষকে ২৭০ কিংবা ২৮০ রানে আউট করতে পারি না৷ আমাদের এই অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে৷ আমাদের যা আছে সব নিয়ে লড়তে হবে৷''

বাংলাদেশকে সেমিফাইনালে দেখছেন না কুম্বলে

ভারতের সাবেক ক্রিকেটার অনিল কুম্বলে ক্রিকেট বিষয়ক ভারতীয় ওয়েবসাইট ‘ক্রিকেটনেক্সট'কে দেয়া সাক্ষাৎকারে মাশরাফির অধিনায়কত্বের প্রশংসা করেছেন৷ সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের পারফর্মেন্সেরও প্রশংসা করেন তিনি৷ তবে ধারাবাহিকতার অভাব রয়েছে উল্লেখ করে কুম্বলে জানান, তিনি মনে করছেন না যে, বাংলাদেশ বিশ্বকাপে শেষ চারে যেতে পারবে৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন