বিমান দুর্ঘটনা ইরানে, মৃত ১৭৬ | বিশ্ব | DW | 08.01.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইরান

বিমান দুর্ঘটনা ইরানে, মৃত ১৭৬

ইরানে বিমান দুর্ঘটনায় মারা গেলেন ১৭৬ জন যাত্রী ও বিমানকর্মী৷ ইউক্রেন এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ বিমানটি তেহরান বিমানবন্দর থেকে ওড়ার সামান্য পরেই ভেঙে পড়ে৷

নতুন বছরের শুরুতেই ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনা৷ তাও ইরানে৷ তেহরানের ইমাম খোমেইনি বিমানবন্দর থেকে ওড়ার সামান্য সময়ের মধ্য়েই কিয়েভগামী ইউক্রেন এয়ারলাইন্সের বিমান ভেঙে পড়ে৷ ইরানের সরকারি টেলিভিশন জানিয়েছে, ১৭৬ জন যাত্রী ও বিমানকর্মীর মধ্যে কেউই আর বেঁচে নেই৷ সরকারি সংবাদসংস্থা ইরনা জানিয়েছে, বিমান দুর্ঘটনার কারণ যান্ত্রিক গোলযোগ৷

ইরানের অসামরিক বিমান পরিবহন দফতরের মুখপাত্র রেজা জাফরজাদে জানিয়েছেন, বিমানটি তেহরানের দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে বিমানবন্দরের কাছে ভেঙে পড়ে৷ তদন্তকারী ও উদ্ধারকারী দল সঙ্গে সঙ্গে সেখানে পৌঁছেছে৷ তিনি বলেছেন, ''ইমাম খোমেইনি বিমানবন্দর থেকে ওড়ার পরেই পারান্দ ও শাহরিয়ার-এর মাঝখানে ভেঙে পড়ে৷'' 

দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমানটি ওড়ার কিছুক্ষণের মধ্য়েই বিমানবন্দরের সঙ্গে তার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়৷ ইরান এ দিন জোনারেল সোলেইমানির হত্যার বদলা নিতে ইরাকে আমেরিকার সেনা ঘাঁটির ওপর আক্রমণ শানিয়েছে৷ তার কিছুক্ষণের মধ্য়েই বিমান দুর্ঘটনা হয়৷ তারপরেই আশঙ্কা করা হচ্ছিল, বিমানটি কোনওভাবে সেই আক্রমণের শিকার হয়ে যায়নি তো? পরে ইরানের সরকারি সংবাদসংস্থা জানিয়েছে, প্রযুক্তিগত কারণেই দুর্ঘটনা ঘটেছে৷

অবশ্য বোয়িং ৭৩৭-৮০০ বিমানে আগেও দুর্ঘটনা হয়েছে৷ ২০১৬তে ফ্লাইদুবাইয়ের বিমান রাশিয়ায় নামতে গিয়ে দুর্ঘটনার মুখে পড়ে৷ তখন ৬২ জন মারা গিয়েছিলেন৷ বোয়িং-এর এই মডেলের বিমানটি পুরনো, এরপর তারা ৭৩৭ মডেল এনেছে৷

জিএইচ/এসজি(রয়টার্স, এপিএ,এফপি,ডিপিএ) 

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন