‘বিমানের পরিচালনা পরিষদ বিলুপ্ত করে পরিবর্তন আনতে হবে’ | বিশ্ব | DW | 06.04.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

‘বিমানের পরিচালনা পরিষদ বিলুপ্ত করে পরিবর্তন আনতে হবে’

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বর্তমান পরিচালনা পর্ষদ বিলুপ্ত করার সুপারিশ করছেন সাবেক বিমানমন্ত্রী এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রনালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন৷

default

ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন জানান, বিমানকে ২০০৭ সালে পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি করা হয়েছিল একে লাভজনক করে বাজারে শেয়ার ছাড়ার জন্য৷ আর এই শেয়ার ছাড়তে হলে পর পর ৩ বছর লাভ করতে হবে৷ কিন্তু হয়েছে ঠিক উল্টো – পর পর ৩ বছর লোকসান করেছে৷

তিনি এজন্য দায়ী করেন বিমান বাহিনীর সাবেক প্রধান জামালউদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে বিমানের বর্তমান পরিচালনা পর্ষদকে৷ তিনি অভিযোগ করেন, তাদের কারণেই বিমানের নিজস্ব ২টি বোয়িং বসিয়ে রাখা হয়েছে৷ আর মেরামতের নামে ৩ মাস ধরে সিঙ্গাপুরে ফেলে রাখা হয়েছে একটি এয়ারবাস৷ এর বিপরীতে বিদেশ থেকে লিজে আনা উড়োজাহাজ চালানো হচ্ছে ব্যক্তিগতভাবে লাভবান হওয়ার জন্য৷

মোশাররফ হোসেন জানান, তাদের সংসদীয় কমিটি বিমানে আরো অনেক দুর্নীতির ক্ষেত্র খুঁজে পেয়েছে৷ আর এসব দুর্নীতির বিষয়ে জবাবদিহিতার জন্য বিমানের চেয়ারম্যানকে সংসদীয় কমিটির বৈঠকে ডাকা হলেও তিনি আসেননি৷

তিনি বলেন, বিমানের বর্তমান পরিচালনা পর্ষদের কারো কাছে জবাবদিহিতা নেই৷ তাই এই পরিচালনা পরিষদ বিলুপ্ত করে এর কাঠামোগত পরিবর্তন আনতে হবে৷ বিমানমন্ত্রীর নেতৃত্বে পরিচালনা পর্ষদ গঠন হলে জবাবদিহিতার আওতায় আসবে৷

তবে বিমান কর্মীদের ১৬ই এপ্রিল থেকে ডাকা ৪৮ ঘন্টার কর্মবিরতি সমর্থন করেন না তিনি৷ তিনি মনে করেন, আলাপ আলোচনার মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব৷ তিনি জানান, সংসদীয় কমিটির পুরো সুপারিশ প্রধানমন্ত্রীকে জানানোর জন্য বিমানমন্ত্রী ফারুক খানকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন