বিনা দোষে জেল: ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ পাবেন জাহালম | বিশ্ব | DW | 30.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

বিনা দোষে জেল: ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ পাবেন জাহালম

পাটকলকর্মী জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে ব্র্যাক ব্যাংককে নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট৷ তাদের ভুলের কারণে আসামি না হয়েও ঋণ জালিয়াতির মামলায় তাকে তিন বছর জেল খাটতে হয়৷

জাহালম (বামে)

জাহালম (বামে)

বিচারপতি এফ আর নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের ভার্চুয়াল হাই কোর্ট বেঞ্চ বুধবার এই রায় দেন বলে জানিয়েছে বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷

অর্থ আত্মসাতের একটি মামলায় ভুলক্রমে ‘আবু সালেক' নামে একজনের বদলে ২০১৬ সালে জাহালমকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ তাকে এই নামে শনাক্ত করেছিলেন ব্র্যাক ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা৷

এজন্য ব্যাংকটিকে রায়ের কপি পাওয়ার এক মাসের মধ্যেই জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে বলেছে হাইকোর্ট৷ টাকা দেওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের দপ্তরে তা লিখিতভাবে জানাতেও বলা হয়েছে৷

বিডিনিউজ তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে, ‘‘সোনালী ব্যাংকের সাড়ে ১৮ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০১২ সালের এপ্রিলে ৩৩টি মামলা করে দুদক৷ দুদক তদন্ত করে বলে, জালিয়াত চক্র সোনালী ব্যাংকের ক্যান্টনমেন্ট শাখায় আবু সালেকসহ তিনজনের হিসাব থেকে ১০৬টি চেক ইস্যু করে৷ চেকগুলো ১৮টি ব্যাংকের ১৩টি হিসাবে ক্লিয়ারিংয়ের মাধ্যমে জমা করে ১৮ কোটি ৪৭ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা হয়৷ ওই ১৮টি ব্যাংকের মধ্যে একটি হলো ব্র্যাক ব্যাংক৷

কিন্তু তদন্ত কর্মকর্তাদের ভুলে সালেকের বদলে গ্রেপ্তার করা হয় টাঙ্গাইলের জাহালমকে৷ তাকে ‘আবু সালেক' হিসেবে শনাক্ত করেছিলেন ব্র্যাক ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা৷ সে কারণে ব্র্যাক ব্যাংককে এই জরিমানা দিতে বলা হয়েছে৷''

এ ঘটনায় সোনালী ব্যাংকের কোনো ভুল পাওয়া যায়নি৷ তবে ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের ঘটনা আর না ঘটে সেজন্য দুদককে সতর্ক করে দিয়েছে হাইকোর্ট৷ সেই সঙ্গে জাহালমের বিরুদ্ধে থাকা ৩৩ মামলা পুনঃতদন্ত করে দ্রুত সময়ে বিচার শেষ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে৷

এফএস/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন