বিডিআর বিদ্রোহের বিচারকাজ শেষের দিকে | বিশ্ব | DW | 13.08.2012

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

বিডিআর বিদ্রোহের বিচারকাজ শেষের দিকে

বাংলাদেশের পিলখানায় বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় আর মাত্র ২টি ইউনিটের মামলার রায় বাকি আছে৷ এপর্যন্ত ৫৪টি ইউনিটের মামলার রায় দেয়া হয়েছে৷

এসব মামলায় ৪২০৯ জন বিডিআর জওয়ানকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে৷ আর খালাস পেয়েছে ৯০ জন৷ তবে হত্যা মামলা এর বাইরে ৷ হত্যা মামলার বিচার চলছে প্রচলিত আদালতে৷

২০০৯ সালের ২৫ এবং ২৬শে ফেব্রুয়ারি বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় ঢাকাসহ সারাদেশে বিডিআরের ৫৬ টি ইউনিটে মোট ৫৬ টি আদালত গঠন করা হয়৷ বিডিআরের নিজস্ব আইনে ২০১০ সালের অক্টোবর মাস থেকে এই মামলাগুলোর বিচার শুরু হয় ৷ রোববার বিডিআরের বিভিন্ন পরিদপ্তর এবং রাইফেল ক্রীড়া বোর্ডের জওয়ানদের বিদ্রোহের মামলার রায়ের মধ্য দিয়ে ৫৪ টি মামলার রায় দেয়া হল৷ এই মামলায় ৩৭ জনকে সর্বোচ্চ ৭ বছরের কারাদণ্ডসহ ৩৩৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেয়া হয়েছে৷ বিডিআরের বিশেষ আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের কৌশুলী অ্যাডভোকেট মোশাররফ হোসেন কাজল ডয়চে ভেলেকে জানন, এই মামলাগুলোতে যেসব বিডিআর সদস্য বিডিআর আইন লঙ্ঘন করেছেন এবং বিদ্রোহে অংশ নিয়েছেন সেই অপরাধের বিচার হয়েছে৷ সদর দফরের ২টি মামলার বিচার শেষ হলেই বিদ্রোহের বিচার শেষ হবে৷

বিডিআর বিদ্রোহে ৫৭ জন সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৪ জন নিহত হয়েছেন৷ এই হত্যাকাণ্ডসহ অগ্নিসংযোগ এবং লুণ্ঠনসহ আরো কয়েকটি ফৌজদারী অপরাদের বিচার হচ্ছে প্রচলিত আইনে৷ বকশিবাজার আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালতে এই বিচারকাজ এগিয়ে চলছে৷অ্যাডভোকেট মোশাররফ হোসেন কাজল জানান, এই মামলায় আসামি আট শতাধিক৷ তাদের অধিকাংশের বিরুদ্ধেই স্বাক্ষ্য গ্রহন শেষ হয়েছে৷ তিনি বলেন, এ বছরের মধ্যেই বিদ্রোহ এবং হত্যা মামলা উভয়ের বিচারকাজ শেষ হবে বলে আশা করছেন৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়