বিক্ষোভ, তাই মোদীর আসাম সফর বাতিল | বিশ্ব | DW | 08.01.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

বিক্ষোভ, তাই মোদীর আসাম সফর বাতিল

সিএএ নিয়ে প্রবল বিক্ষোভ চলছে, তাই আসাম সফর বাতিল করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ আগামী শুক্রবার গুয়াহাটিতে গিয়ে তাঁর 'খেলো ইন্ডিয়া ইয়ুথ গেমস' এর উদ্বোধন করার কথা ছিল৷

সিএএ-র বিরুদ্ধে লাগাতার প্রতিবাদ তো চলছেই, তার ওপর আসু আগাম হুমকি দিয়ে রেখেছিল, প্রধানমন্ত্রী আসাম এলে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখানো হবে৷ দেখানো হবে কালো পতাকা৷ এরপর অশান্ত আসাম এড়িয়ে গেলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী৷ সরকারিভাবে সফর বাতিল করার কথা জানানো না হলেও 'খেলো ইন্ডিয়া গেমসে'-এর সিইও অবিনাশ জোশী জানিয়েছেন, তাঁদের আমন্ত্রণের কোনও আনুষ্ঠানিক জবাব আসেনি৷ তাঁর সঙ্গে কথা বলে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানাচ্ছে, ''অবিনাশ বলেছেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম৷ এখনও পর্যন্ত কোনও জবাব আসেনি৷ বরং ঘরোয়াভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, তিনি আসবেন না৷'' গুয়াহাটিতে অগ্রদূত সংবাদপত্রগোষ্ঠাী আয়োজিত অনুষ্ঠানেও যাওয়ার কথা ছিল প্রধানমন্ত্রীর৷ তাঁদেরও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, মোদী যাবেন না৷ 

সিএএ পাস হওয়ার পর এই নিয়ে  আসামে প্রধানমন্ত্রী মোদীর দ্বিতীয় সফর বাতিল হল৷ এর আগে ১৫ থেকে ১৭ ডিসেম্বর জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী মোদীর শীর্ষ বৈঠক গুয়াহাটিতে হওয়ার কথা ছিল৷ তখনও বিক্ষোভে উত্তাল আসামে এই বৈঠক করা যায়নি৷ এখনও করা গেল না৷

'খেলো ইন্ডিয়া'ও প্রধানমন্ত্রী মোদীর পছন্দের প্রকল্প৷ সেখানে না যেতে পারার একটা অস্বস্তি মোদীর থাকবে৷ অসমীয় প্রতিদিনের প্রবীণ সাংবাদিক আশিস গুপ্ত ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, ''গত ছ বছরের মধ্যে এই প্রথম মনে হচ্ছে, মোদী সরকার প্রকৃত চাপের মুখে পড়েছে৷ না হলে আগেও বিভিন্ন বিষয়ে আন্দোলন হয়েছে৷ কিন্তু কখনও প্রধানমন্ত্রীর সফর বাতিল করার মতো ঘটনা ঘটেনি৷ বিক্ষোভকারীরা আসামের মন্ত্রীদেরও যেখানে পারছেন, সেখানেই কালো পতাকা দেখাচ্ছেন৷'' এই উত্তেজক পরিস্থিতির জন্যই সফর বাতিল হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

ভিডিও দেখুন 01:15

জাপানের প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর বাতিল

সারা দেশে যে কারণে সিএএ নিয়ে বিক্ষোভ হচ্ছে, আসামে অবশ্য সে জন্য হচ্ছে না৷  এখানে বিক্ষোভের কারণ হল, আসামের লোক বাদে মূলত ১২ লাখ বাঙালি যদি নাগরিকত্ব পেয়ে যান, তা হলে তো তাঁদের এনআরসি করার মূল উদ্দেশ্যই বানচাল হবে৷ তাই তারা কিছুতেই সিএএ মানতে রাজি নয়। সেই আসাম আন্দোলনের পর থেকে এতদিন মৃতপ্রায় আসু এই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়ে আবার চাঙ্গা হয়ে গিয়েছে৷ এই প্রথমবার অসম শাসন করতে গিয়ে বিজেপি ব্যাকফুটে৷ 

জিএইচ/এসজি (ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন