​​​​​​​বিক্ষোভে উত্তাল লেবানন | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 16.12.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

লেবানন

​​​​​​​বিক্ষোভে উত্তাল লেবানন

লেবাননের রাজনৈতিক সংকট গভীর থেকে গভীরতর হচ্ছে৷ সরকার বিরোধী বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করা সাদ হারিরিকেই আবারও প্রধানমন্ত্রী করা হলে বিক্ষোভ আরো জোরদার হতে পারে৷

লেবাননে সরকারের অর্থনৈতিক অব্যবস্থাপনায় ক্ষুব্ধ জনতা গত অক্টোবর থেকে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ শুরু করে 

প্রতিবাদ শান্তিপূর্ণভাবে শুরু হলেও ধীরে ধীরে তা সহিংস রূপ নিচ্ছে৷ রোববার টানা দ্বিতীয় দিনের মত বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে৷ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ার গ্যাস, রাবার বুলেট ও জলকামান ব্যবহার করে৷

রোববার রাতের ওই সংঘর্ষে এক ডজনের বেশি মানুষ আহত হয়েছেন৷ আগের দিন রাতেও অর্ধশত মানুষ আহত হন৷

রাজনীতিতে অভিজাতদের প্রাধান্য এবং হারিরির বিরুদ্ধে দুর্নীতি এবং অব্যবস্থাপনার মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিকে গভীর সংকটে ঠেলে দেওয়া অভিযোগে এ বিক্ষোভ শুরু হলে গত ২৯ অক্টোবর পদত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি৷ যদিও রাষ্ট্রপতির অনুরোধে হারিরি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দায়িত্ব পালন করছেন৷

হারিরি পদত্যাগ করলেও নতুন সরকার গঠন নিয়ে আলোচনা স্থবির হয়েই ছিল৷ যা নিয়ে নানা কথা ডালপালা ছড়াতে শুরু করলে দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আওন সোমবার বাধ্যতামূলক সংসদীয় পরামর্শ সভার আহ্বান করেন।

ওই সভায় সংসদ সদস্যের ভোটে হারিরিই আবার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে৷

নতুন করে বিক্ষোভ  এ কারণেই৷ বিক্ষোভকারীরা একটি স্বাধীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি জানাচ্ছে৷

রোববার বিক্ষোভকারীরা ‘সাদ, সাদ, সাদ আর স্বপ্ন দেখবেন না' এবং ‘গণঅভ্যুত্থান গণঅভ্যুত্থান' বলে স্লোগান দেন৷

গত দুই মাসের মধ্যে শনিবার ও রোববার রাতের আন্দোলনই সবচেয়ে নৃশংস রূপ নিয়েছিল৷

রোববার রাতে দাঙ্গা পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে কয়ক ঘণ্টা ধরে সংঘর্ষের পর বৈরুতের সড়কে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে৷

এসএনএল/কেএম (এএফপি, এপি, রয়র্টাস)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন