বাড়ছে সংক্রমণ, গার্মেন্টস বন্ধের পরামর্শ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 27.03.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

বাড়ছে সংক্রমণ, গার্মেন্টস বন্ধের পরামর্শ

বাংলাদেশে আরো চারজনের করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ‍শনাক্ত হয়েছে; তাদের মধ্যে দুইজন চিকিৎসক। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৮।

তবে গত ৪৮ ঘণ্টায় কেউ মারা যাননি। যারা অসুস্থ আছেন তাদের শারীরিক অবস্থাও স্থিতিশীল আছেবলে শুক্রবার অনলাইন সংবাদ ব্রিফিংয়ে জানায় আইইডিসিআর।

নতুন সংক্রমিতদের মধ্যে দুই চিকিৎসক একজন করোনা আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা দিয়েছিলেন। বাকি দুইজন আগে চিহ্নিত রোগীদের সংস্পর্শে এসেছিলেন।

এই দুইজনের মধ্যে একজনের বিষয়ে কিছুটা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন আইইডিসিআরের পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। তিনি বলেন, ‘‘এদের একজন চিহ্নিত একটি ক্লাস্টার থেকে এসেছেনে। ওই ক্লাস্টারে প্রথম সংক্রমণকরোনা অর্থনীতিপাঁচ হাজার কোটি কোথা থেকে এসেছিল সে তথ্য এখনো আমরা পাইনি। আমরা অনুসন্ধান চালিয়ে প্রথম সংক্রমণ খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি।”

আইইডিসিআর ছাড়াও চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস-বিআইটিআইডি -এ করোনা সংক্রমণ পরীক্ষা শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে টানা ১০ দিনের ছুটির দ্বিতীয় দিনেও দেশজুড়ে অচলাবস্থা বিরাজ করছে। প্রশাসন থেকে মাইকে জনগণকে ঘরে অবস্থান করার এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী।

প্রথম দিনের মতো এদিনও রাস্তায় কিছু অপ্রীতিকর ঘটনার ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘুরছে। এর পক্ষে ও বিপক্ষে নানা আলোচনা সমালোচনা চলছে।

গার্মেন্টস বন্ধের পরামর্শ

প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী আদেশে পাঁচ দিনের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত জরুরি সেবা প্রতিষ্ঠান ও ব্যাংক ছাড়া বাকি সব সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

কিন্তু গার্মেন্টস কারখানা বন্ধের সিদ্ধান্ত বিজিএমইএর উপর ছেড়ে দিয়েছিল সরকার। এ বিষয়ে এতদিন নীরব থাকার পর অবশেষে বিজিএমইএর সভাপতি রুবানা হক বৃহস্পতিবার দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে গার্মেন্টস মালিকদের ৪ এপ্রিল পর্যন্ত কারখানা বন্ধের বিষয়টি বিবেচনায় নিতে পরামর্শ দিয়েছেন।

ওই দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ফেসবুকে সাংবাদিকদের কাছে পাঠানো এক বার্তায় তিনি নিজের এ অবস্থানের কথা জানান বলে জানায় বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

তিনি বলেন, মালিকদের সংগঠন হিসেবে বিজিএমইএ কারখানা বন্ধের নির্দেশনা দিতে পারে ‍না। এটা মালিকদের নিজস্ব সিদ্ধান্ত। তবে সরকার চাইলে কারখানা বন্ধের নির্দেশ দিতে পারেন।

রপ্তানিমুখী নিট পোশাক প্রস্তুতকারীদের সংগঠন বিকেএমইএও তাদের সদস্যভুক্ত সব কারখানায় সাধারণ ছুটি ঘোষণার নির্দেশ দিয়েছে বলে জানিয়েছে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷ সরকারি সিদ্ধান্ত অনুসরণ করে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি দিতে বলেছে বিকেএমইএ।

কারখানা ছুটির সময়ে শ্রমিকরা যেন কোথাও না গিয়ে নিজ নিজ অবস্থানেই থাকেন সেই নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।বিকেএমইএর অধীনে দুই হাজার ২৮৩টি কারখানা রয়েছে, যেগুলোতে কর্মরত রয়েছেন অন্তত ২৫ লাখ শ্রমিক।

এসএনএল/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন