বাল্যবিয়ে রোধে ইউনিসেফের সচেতনতামূলক ভিডিও | বিশ্ব | DW | 12.10.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল ভিডিও

বাল্যবিয়ে রোধে ইউনিসেফের সচেতনতামূলক ভিডিও

বাদানুবাদ নয়, হাতাহাতি নয়, কেবল হাতে তালির মতো সাধারণ একটা কাজের সম্মিলিত আওয়াজ হয়ে উঠে পারে প্রতিবাদের ভাষা৷ প্রত্যেকের সচেতন প্রতিবাদ রুখে দিতে পারে বাল্যবিয়ের মতো সামাজিক এক রোগ৷

বাল্যবিয়ে রুখতে হলে, আওয়াজ তোলো তালে তালে, এ শ্লোগান নিয়ে ইউনিসেফ বাংলাদেশ বাল্যবিয়ে রুখতে ইংরেজিতে #রেইজদ্যবিট৪ইসিএম নামে একটি হ্যাশট্যাগ ক্যাম্পেন চালু করেছে৷ এর আওতায় ফেসবুক, টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ কয়েকটি ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে৷

এর মধ্যে একটিতে দেখা যায়, মাথা নীচু করে বসে আছে কনে৷ কাজী সাহেব ঠোঁটে লেগে থাকা পানের পিক মুছতে মুছতে জানতে চাইছেন, পাত্রীর বয়স কত? বাবা কাঁচুমাচু হয়ে বলছেন, আঠারোই লেখেন৷ তবে মেয়ের বয়স নিয়ে কাজীর মনে সংশয় জাগে আর তারপর তিনি উঠে দাঁড়িয়ে তালি দিতে শুরু করেন৷ পরে তার সঙ্গে যোগ হয় আরো অনেকের প্রতিবাদ৷ গত ৮ অক্টোবর ইউনিসেফ বাংলাদেশের ফেসবুক পাতায় ভিডিওটি পোস্ট করা হয়৷ এরই মধ্যে ভিডিওটি শেয়ার হয়েছে ৩,৬৬৩ বার, দেখা হয়েছে প্রায় ৭ লাখ ২৪ হাজার বার৷ ইউনিসেফ বাংলাদেশের এই ক্যাম্পেনকে স্বাগত জানিয়ে এসেছে অসংখ্য কমেন্ট৷ অনেকে তুলে ধরেছেন, আইনের নানা ফাঁকফোকরের কথাও৷ সাইফুল ইসলাম সাইফ লিখেছেন, ‘‘জন্মনিবন্ধন তো ১০০ টাকা দিলেই পাওয়া যায়৷ জন্মনিবন্ধন প্রক্রিয়াটি আরো কঠিন এবং আধুনিক করতে হবে৷ ফরমে বাবা মা উভয়ের এনআইডি নম্বর থাকতে হবে৷'' আশিকুর রহমান শুভ লিখেছেন, ‘‘সরকারের উচিত ৫ম শ্রেণি থেকে ৭ম শ্রেণি পর্যন্ত সকল বাংলা বইয়ে ‘বাল্যবিবাহের কুফল' নামে কিছু গল্প লেখা, যাতে করে ছেলেমেয়েরা ছোট্টবেলা থেকে বাল্যবিবাহের কুফল নিয়ে সচেতন হতে পারে৷'' অবশ্য অনেকে মতামত দিয়েছেন, বিয়ের বয়স নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে মেয়েদের ধর্মীয় শিক্ষা দেয়া উচিত৷

বাল্যবিয়ে রুখতে একটি হেল্পলাইনে (১০৯) কল দিয়ে তথ্য দিতে বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে৷ জিয়াউল হক লিখেছেন, ‘‘আজাইরা, ১০৯-এ কল দিলে কিছুই হয়না৷ খালি খালি বিজ্ঞাপন৷''

ক্যাম্পেনের অংশ হিসেবে ইউনিসেফ বাংলাদেশ আরো দুটি ভিডিও প্রকাশ করেছে৷ ইউনিসেফের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে বাল্যবিয়ের হার সবচেয়ে বেশি৷ ১৮ বছর বয়স হওয়ার আগেই বাংলাদেশের ৬৬ শতাংশ মেয়ের বিয়ে হয়ে যায়৷

অনেকেই ভিডিওগুলো শেয়ার করে এর পক্ষে নিজেদের অবস্থান জানিয়ে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে সামিল হচ্ছেন৷ তবে ভিডিওগুলোর নীচে লেখা অনেক মন্তব্য ইঙ্গিত দেয়, বাল্যবিয়ের অভিশাপ সম্পর্কে প্রান্তিক পর্যায়ে সচেতনতা তৈরি না হলে এ থেকে খুব সহজে মুক্তি মিলবে না বাংলাদেশের কিশোরীদের৷ যদিও ফারহান পারভেজের মতো অনেকের আশা, ‘‘হাততালিগুলো আপনাকে জাগাবেই!!!''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন