বার্লিনে শলৎস-মাক্রোঁ বৈঠক | বিশ্ব | DW | 10.05.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

বার্লিনে শলৎস-মাক্রোঁ বৈঠক

দ্বিতীয়বার নির্বাচনে জেতার পর জার্মানি সফর করলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ। জার্মান চ্যান্সেলর ওলফ শলৎসের সঙ্গে দেখা করেছেন তিনি।

মাক্রোঁ ও শলৎসের বৈঠকে ইউক্রেন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

মাক্রোঁ ও শলৎসের বৈঠকে ইউক্রেন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

দুই রাষ্ট্রনেতাই বলেছেন, রাশিয়া সৈন্য ফিরিয়ে না নিলে শান্তি প্রতিষ্ঠা অসম্ভব। দুজনেই ইউক্রেনের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন। মাক্রোঁ বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য হতে ইউক্রেনের কয়েক দশক লেগে যাবে।

শলৎসের বক্তব্য

আলোচনায় বসার আগে সাংবাদিক সম্মেলনে শলৎস বলেছেন, ''আমরা ইউক্রেনের পাশে আছি। ইউক্রেন আমাদের ইউরোপীয় পরিবারের সদস্য।'' তিনি জানিয়েছেন, ''প্রতিবেশী দেশের উপর রাশিয়ার হামলা ইতিহাসের টার্নিং পয়েন্ট হয়ে থাকবে। ইউরোপীয় দেশগুলির এখন একযোগে কাজ করতে হবে।''

শলৎস জানিয়েছেন, ''আমরা ইউক্রেনকে নৈতিক, আর্থিক ও সামরিক দিক থেকে সমর্থন ও সহায়তা করি। ইউরোপের সীমান্তে সহিংসতা চলবে এটা হতে পারে না। এই যুদ্ধ যাতে অন্যত্র প্রসারিত না হয়, তার জন্য আমরা সর্বশক্তি দিয়ে চেষ্টা করব।''

সাংবাদিক সম্মেলনে যোগ দিতে যাচ্ছেন মাক্রোঁ ও শলৎস।

সাংবাদিক সম্মেলনে যোগ দিতে যাচ্ছেন মাক্রোঁ ও শলৎস।

মাক্রোঁ যা বলেছেন

ফরাসি প্রেসিডেন্ট মাক্রোঁ দুই দেশের বন্ধুত্বের উপর জোর দিয়েছেন। চ্যান্সেলর হওয়ার পর শলৎসের বিদেশে প্রথম গন্তব্য ছিল ফ্রান্স। মাক্রোঁও আবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথম গন্তব্য হিসাবে জার্মানিকেই বেছে নিয়েছেন।

মাক্রোঁ বলেছেন, ''দুই দেশ মিলে ইউরোপকে আরো শক্তিশালী করবে। প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্র নীতির ক্ষেত্রে দুই দেশ হাত মিলিয়ে চলবে।'' ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের মতে, ''রাশিয়া ইউক্রেনে যে হামলা করেছে, আমাদের সকলের উপর তার প্রবল প্রভাব পড়বে। ইউক্রেনকে রক্ষা করার জন্য ইউরোপকে এক হয়ে চেষ্টা করতে হবে।''

মাক্রোঁ জানিয়েছেন, ''ইউরোপের দেশগুলি এক হয়ে ইউক্রেনকে সমর্থন করবে এবং রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরো নিষেধাজ্ঞা জারি করবে।''

দুই নেতাই রাশিয়ার তেল ও গ্যাসের উপর থেকে নির্ভরতা কমাবার কথা বলেছেন।

'কয়েক দশক লাগবে'

সোমবার মাক্রোঁ ইউরোপীয় পার্লামেন্টেও ভাষণ দেন। সেখানে তিনি বলেন, ''ইউক্রেনকে ইইউ-র সদস্যপদ পেতে হলে কয়েক বছর নয়, কয়েক দশক লাগবে। ইইউ-র বর্তমান প্রটোকল অনুযায়ী এতটা সময় লেগে যাবে।'' তার প্রস্তাব, ''রাজনৈতিক ইউরোপীয় সম্প্রদায় তৈরি করা হোক। সেখানে ইউরোপের বাইরে থাকা ইউক্রেনের মতো দেশগুলিকে নেয়া হোক। তারা ইউরোপের কোর ভ্যালুর সঙ্গে যুক্ত হতে পারবে।''

জিএইচ/এসজি(এপি, এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)