বার্লিনে বাড়িঘরের দাম বাড়ছে সবচেয়ে দ্রুত হারে | বিশ্ব | DW | 13.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

বার্লিনে বাড়িঘরের দাম বাড়ছে সবচেয়ে দ্রুত হারে

নাইট ফ্র্যাংক কনসাল্টেন্সির নতুন রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৭ সালে বিশ্বের সব ক'টি বড় শহরের মধ্যে বার্লিনেই জমি বা বাড়িঘরের দাম বেড়েছে সবচেয়ে বেশি৷ এক্ষেত্রে বিশ্ব টপ টেনে আরো তিনটি জার্মান শহর রয়েছে৷

নাইট ফ্র্যাংক প্রপার্টি কনসাল্টেন্সির ‘গ্লোবাল রেসিডেন্সিয়াল সিটিজ ইনডেক্স’ বা বিশ্বব্যাপী আবাসিক শহর এলাকার সূচক অনুযায়ী ২০১৭ সালে জার্মানির রাজধানীতে স্থাবর সম্পত্তি, অর্থাৎ জমি বা বাড়িঘরের গড় দাম বাড়ে ২০ দশমিক ৫ শতাংশ, অর্থাৎ দ্বিতীয় স্থানাধিকারী তুরস্কের ইজমির শহরের চেয়ে প্রায় দুই শতাংশ বেশি৷

আরো তিনটি জার্মান শহর স্থাবর সম্পত্তির মূল্যবৃদ্ধির তালিকার প্রথম ১০টি স্থানের মধ্যে আছে৷ সপ্তম স্থানাধিকারী হামবুর্গে হাউজিং-এর দাম বেড়েছে ১৪ দশমিক ১ শতাংশ; অষ্টম স্থানাধিকারী মিউনিখে সম্পত্তির দাম বেড়েছে ১৩ দশমিক ৮ শতাংশ; দশম স্থানাধিকারী ফ্রাংকফুর্টে বাড়িঘরের দাম বেড়েছে ১৩ দশমিক ৪ শতাংশ৷

অথচ সারা বিশ্বে হাউজিং বা আবাসিক সম্পত্তির মৃল্যবৃদ্ধির হার কিন্তু ২০১৬ সালে সাত শতাংশ থেকে ২০১৭ সালে সাড়ে চার শতাংশে কমে এসেছে৷ ২০১৬ সালে বিশ্বের ১২টি শহরে সম্পত্তির মূল্যবৃদ্ধির হার ছিল ২০ শতাংশের বেশি, কিন্তু ২০১৭ সালে একমাত্র বার্লিনই ২০ শতাংশ অতিক্রম করতে সক্ষম হয়৷  

বার্লিনের এই রমরমার কারণ হিসেবে নাইট ফ্র্যাংকের সমীক্ষায় বলা হয়েছে যে, ‘‘অধিবাসীদের ব্যাপক সংখ্যাবৃদ্ধি, স্থিতিশীল অর্থনীতি, অতি নিম্ন বেকারত্বের হার এবং বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ মিলে বাড়িঘরের দাম বাড়িয়ে চলেছে৷’’

বাড়ির দাম নিয়ে ফাটকা?

বস্তুত বিগত দু'দশক ধরে বার্লিনে বাড়িঘরের দাম জার্মানির অন্যান্য শহরের তুলনায় কমই ছিল৷ কিন্তু ২০০৪ সাল যাবৎ বার্লিনে বাড়িঘরের দাম বেড়েছে মোট ১২০ শতাংশ৷ অপরদিকে জার্মানির কেন্দ্রীয় ব্যাংক (‘বুন্ডেসবাংক’) গত ফেব্রুয়ারি মাসে আভাস দেয় যে, জার্মানির শহরগুলিতে বাড়িঘরের দাম ১৫ থেকে ৩০ শতাংশ ফাঁপানো হয়ে থাকতে পারে – জার্মানির ক্ষেত্রে বাড়িঘরের দাম হয়ত বাস্তবিক মূল্যের চেয়ে ৩৫ শতাংশ বেশি চড়ে রয়েছে৷

বার্লিনে স্থাবর সম্পত্তির দাম কিন্তু এখনও তুলনামূলকভাবে কম, বিশেষ করে আন্তর্জাতিক তুলনায়৷ কাজেই বিদেশি বিনিয়োগকারীরা পূর্বাপর বার্লিনে সম্পত্তি কিনতে আগ্রহী৷ স্থাবর সম্পত্তির বিশ্লেষকরাও পূর্বাপর ইউরোপে স্থাবর সম্পত্তি কেনার ‘টপ স্পট’-গুলির মধ্যে বার্লিনকে দেখিয়ে যাচ্ছেন৷ গত মার্চ মাসের সূচনায় মার্কিন বিলিওনেয়ার ওয়ারেন বাফেট বার্লিনে অভিজাত আবাসিক সম্পত্তি কেনার ব্যাপারে বার্লিনের রুবিনা রিয়্যাল এস্টেট কোম্পানির সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেন৷

বহু বিদেশি বিনিয়োগকারী বার্লিনে আবাসিক বসতবাড়ি কিনছেন ও পর্যটকদের ফ্ল্যাট ভাড়া দিচ্ছেন, যার ফলে বার্লিনে ঘরবাড়ির বাজারের উপর আরো চাপ সৃষ্টি হয়েছে৷

বিধায়করা বাড়িঘরের দাম বাড়া নিয়ন্ত্রণের জন্য নানারকম পন্থা অবলম্বন করছেন৷ ২০১৬ সালে বার্লিনের সামাজিক গণতন্ত্রী প্রশাসন টুরিস্টদের বেআইনিভাবে ফ্ল্যাট ভাড়া দেওয়ার অপরাধে বাড়িওয়ালাদের এক লাখ ইউরো অবধি জরিমানার ব্যবস্থা করেন৷

গত জানুয়ারি মাসে বার্লিন সেনেটের নগর উন্নয়ন ও আবাসন বিভাগ জানায় যে, ঐ আইনের ফলে ২০১৭ সালে বার্লিনে ৮,০০ ফ্ল্যাট আবার স্থায়ী আবাসন হিসেবে ভাড়া দেওয়া হয়েছে৷ এছাড়া সে-বছর বাড়িওয়ালাদের ২৬ লাখ ইউরোর বেশি জরিমানা করা হয়েছে, বলে জানিয়েছে সরকারি আরবিবি টেলিভিশন কেন্দ্র৷

বার্লিনের জনসংখ্যা বর্তমানে ৩৫ লাখ, কিন্তু তা ২০৩০ সালের মধ্যে দশ শতাংশের বেশি বেড়ে ৪০ লাখে পৌঁছাবে, বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে৷ কাজেই বার্লিনে বাড়িঘরের বাজারের উপর চাপ সেই অনুপাতে বাড়বে বলেই ধরে নেওয়া যেতে পারে৷

ডাভিস ফ্যানঅপডর্প/এসি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়