বাইডেনের জয়ের বিপক্ষে দাঁড়াবেন ১১ সেনেটর | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 03.01.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্র

বাইডেনের জয়ের বিপক্ষে দাঁড়াবেন ১১ সেনেটর

যুক্তরাষ্ট্রে বাইডেনের জয়ের বিপক্ষে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন ১১ জন রিপাবলিকান সেনেটর৷ এক বিবৃতিতে তারা এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন৷

যুক্তরাষ্ট্রে বাইডেনের জয়ের বিপক্ষে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন ১১ জন রিপাবলিকান সেনেটর৷ এক বিবৃতিতে তারা এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন৷

সেনেটর টেড ক্রুজ৷

বিবৃতিদাতা সেনেটরদের মধ্যে সবশেষ যোগ দিয়েছেন টেড ক্রুজ৷ নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ ওঠা রাজ্যগুলোর ফলাফল বাতিলের আবেদন জানাবেন তারা৷ তাদের দাবি সেসব রাজ্যের ফলাফল খতিয়ে দেখতে কংগ্রেসকে জরুরিভিত্তিতে ১০ দিনের একটি অডিট বা নিরীক্ষার উদ্যোগ নিতে হবে৷ ৬ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ইলেক্টরাল কলেজের ফলাফল গণনার কথা রয়েছে৷

বিবৃতিতে সেনেটররা বলেছেন, নিরীক্ষা শেষে প্রতিটি রাজ্য কমিশনের তদন্ত মূল্যায়ন করে দেখবে এবং তার ভিত্তিতে প্রয়োজনে ভোটের ফলাফল পরিবর্তনের বিষয়ে মত দিবে৷

তবে কোন কোন রাজ্যগুলোকে অডিটের আওতায় আনার কথা বলছেন বিবৃতিদাতারা সেটি স্পষ্ট করেননি৷

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফল কি বদলে যাবে?

৩ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর থেকেই ভোট কারচুপির অভিযোগ করে আসছেন ডনাল্ড ট্রাম্প, যদিও এ বিষয়ে কোন তথ্য প্রমাণ হাজির করতে পারেননি৷ বিভিন্ন রাজ্যের আদালতে করা মামলাগুলোও তাই টেকেনি৷ জনগণের ভোটে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেও বাইডেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে হোয়াইট হাউসে যেতে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের ভোট পেতে হবে৷ ৬ জানুয়ারি বিভিন্ন রাজ্যের ইলেক্টরাল ভোটের ভিত্তিতে তা নিশ্চিত হবে৷ বিবৃতিদাতা সেনেটরদের আবেদনটি আমলে নিতে হলে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস-এর কমপক্ষে ১৪০ জন রিপাবলিকানকে প্রস্তাবে সমর্থন দিতে হবে৷

কিন্তু সেনেটরদের এই পদক্ষেপকে অগণতান্ত্রিক হিসেবে উল্লেখ করেছে ডেমোক্র্যাটরা৷ একই মত কয়েকজন রিপাবলিকান নেতারও৷ বাইডেনের নির্বাচনি প্রচার দলের একজন মুখপাত্র মাইকেল গুইন তাদের দাবিকে ভিত্তিহীন উল্লেখ করে বলেছেন, এটি ২০ জানুয়ারি বাইডেনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেয়ার পথে বাধা হবে না৷ এরইমধ্যে অভিযোগগুলো পরীক্ষা করা হয়েছে এবং ট্রাম্পের নিজস্ব অ্যাটর্নি জেনারেল, আদালত আর দুই দলের নির্বাচনি কর্মকর্তারাও তা বাতিল করেছেন

ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী, এর আগে ২০০৫ সালে প্রথমবারের মতো ইলেক্টরাল ভোট নিয়ে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিলেন তৎকালীন সেনেটর বারবারা বক্সার ও রিপাবলিকান স্টেফানি টাবস জোনস৷ তারা ওহাইও রাজ্যে জর্জ ডব্লিউ বুশের জয়ের ব্যাপারে চ্যালেঞ্জ জানান৷ কিন্তু হাউজ ও সেনেটে বিতর্কের পর দুই কক্ষের ভোটাভুটিতেই বড় ব্যবধানে সেটি বাতিল হয়ে যায়৷ ডেমোক্র্যাট সংখ্যাগরিষ্ঠ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস এবং রিপাবলিকানদের নিয়ন্ত্রণে থাকা সেনেটে বাইডেনের বিজয়কে চ্যালেঞ্জ জানানো সেনেটরদের আবেদন কতটা টিকতে পারে তা এখন দেখার বিষয়৷

এফএস/জেডএ (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়