বাংলাদেশে হঠাৎ করে কমে এসেছে ‘রেমিটেন্স′ | বিশ্ব | DW | 05.10.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

বাংলাদেশে হঠাৎ করে কমে এসেছে ‘রেমিটেন্স'

প্রবাসী কল্যাণ সচিব ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, মধ্যপ্রাচ্যের প্রচলিত শ্রমবাজারে বাংলাদেশ তার অবস্থান ধরে রাখতে পারছেনা৷ কারণ, সেখানে তাদের নাগরিকদেরই এখন কাজ প্রয়োজন৷ অর্থনীতিবিদরা এজন্য বিকল্প বাজারের কথা বলেছেন৷

লিবিয়ায় গাদ্দাফির বিরুদ্ধে বিদ্রোহের সময় অনেক বাংলাদেশি কর্মীকে দেশ ছাড়তে হয়েছিল

লিবিয়ায় গাদ্দাফির বিরুদ্ধে বিদ্রোহের সময় অনেক বাংলাদেশি কর্মীকে দেশ ছাড়তে হয়েছিল

সেপ্টেম্বরের আগের ৬ মাসে বাংলাদেশে গড়ে রেমিটেন্সের প্রবাহ ছিল হাজার মিলিয়ন ডলারের বেশি৷ আগস্ট মাসেও রেমিটেন্স এসেছে ১ হাজার ১০১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার৷ আর তা সেপ্টেম্বরে কমে দাঁড়িয়েছে ৮৪৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার৷

Tunesien Libyen Flüchtlinge aus Bangladesch an der Grenze Reisepass

মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত বাংলাদেশি কর্মীদের প্রতিকূল পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হচ্ছে

প্রবাসী কল্যাণ সচিব সৈয়দ জাফর আহমেদ খান ডয়চে ভেলেকে জানান, বিদেশে বাংলাদেশের শ্রমশক্তির সবচেয়ে বড় বাজার মধ্যপ্রাচ্যে৷ শুধুমাত্র সৌদি আরবেই ২০ লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক কাজ করেন৷ কিন্তু সেই বাজার আর ধরে রাখা যাচ্ছেনা৷ কারণ, সৌদি আরবই এখন তাদের বেকার নাগরিকদের কাজে নিযুক্ত করছে৷ আর সেখানে মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও, অবৈধভাবে অবস্থানরত বাংলাদেশিরা সমস্যার সৃষ্টি করছে৷ তাই তিনি তাদের দেশে ফিরে আসার পরামর্শ দিয়েছেন৷

অর্থনীতিবিদ ড. এ কে এস মুরশিদ এই পরিস্থিতিতে বিকল্প বাজারের কথা বলেছেন৷ তিনি মনে করেন, বিকল্প বাজার সৃষ্টির জন্য কূটনৈতিক তৎপরতা জোরদার করা না গেলে সংকট আরো বাড়বে৷

জবাবে প্রবাসী কল্যাণ সচিব সৈয়দ জাফর আহমেদ খান বলেন, ইতিমধ্যেই বিকল্প বাজারে বাংলাদেশের জনশক্তি পাঠানো শুরু হয়েছে৷ তিনি জানান, ইউরোপ ও পূর্ব ইউরোপে যাচ্ছে বাংলাদেশের শ্রমিক৷ জাফর আহমেদ খান জানান, বিকল্প বাজারের জন্য বিদেশে বাংলাদেশের দূতাবাসগুলো কাজ করছে৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়