বাংলাদেশে সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকি বেড়েই চলেছে | বিশ্ব | DW | 17.11.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

বাংলাদেশে সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকি বেড়েই চলেছে

হিসেবটা গত বছরের হলেও বাংলাদেশের জন্য তা আশঙ্কাজনক৷ ২০১৫ সালেই সবচেয়ে বেশি সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে দেশে৷ আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে তারই প্রতিফলন৷ সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর তালিকায় বাংলাদেশ এখন আরো ওপরে৷

২০১৫ সালে এ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ২৫তম৷ এবার আরো তিন ধাপ অবনতির ফলে হয়েছে ২২তম৷ তবে প্রতিবেশী ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে বাংলাদেশের অবস্থা এখনো অনেক ভালো৷

সন্ত্রাসবাদের এই সূচক প্রকাশ করেছে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিভিত্তিক আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা ‘ইন্সটিটিউট ফর ইকোনোমিক্স অ্যান্ড পিস'৷ গত চার বছর ধরে এ সূচক প্রকাশ করছে তারা৷ এবারের সূচক প্রকাশ করা হয় বুধবার৷

২০১৫ সালকে বাংলাদেশের জন্য একটি কঠিন বছর হিসেবে চিহ্নিত করেছে ‘ইন্সটিটিউট ফর ইকোনোমিক্স অ্যান্ড পিস'৷ তাদের হিসাবে গতবছর বাংলাদেশে মোট ৪৫৯টি সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়৷ এতে ৭৫ জন নিহত হন৷ অধিকাংশ হামলাই চালায় জেএমবি-র মতো স্থানীয় জঙ্গি সংগঠন৷ তবে আইএস ১১টি হামলার দায় স্বীকার করে৷

অডিও শুনুন 01:48
এখন লাইভ
01:48 মিনিট

‘অন্যান্য মুসলিম দেশে সন্ত্রাসবাদ যেভাবে ঢুকে পড়েছে, তা বাংলাদেশে হয়নি’

আর আল-কায়েদার ভারতীয় শাখা আনসার আল-ইসলাম ছয়টি হামলার দায় স্বীকার করেছে৷ বাংলাদেশ সরকার অবশ্য এ সব হামলায় কোনো বিদেশি জঙ্গি সংগঠনের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে৷

নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল আব্দুর রশিদ (অব.) ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘তারা তাদের মানদণ্ডে এই তালিকা করেছে৷ বাংলাদেশে ২০১৫ সালে ব্যক্তির ওপর হামলা বা সন্ত্রাসী আঘাত বেশি হয়েছে৷ তবে এটা স্পষ্ট যে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশের অবস্থান সবচেয়ে ভালো৷ বিভিন্ন মুসলিম দেশে সন্ত্রাসবাদ যেভাবে ঢুকে পড়েছে সেরকম পরিস্থিতি এখানে নেই৷''

তাঁর মতে, ‘‘বাংলাদেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবিরোধী অভিযান যে মাত্রা পেয়েছে তা যদি অব্যাহত থাকে তাহলে বাংলাদেশ সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকি আর বাড়ার  কথা নয়, কম ঝুঁকির দেশ হিসবেই বাংলাদেশ থাকবে৷''

তবে মানবাধিকার সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক এবং জঙ্গি বিষয়ক গবেষক নূর খান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘২০১৫ সালের যে ঝুঁকি তা ২০১৬ সালে আরো বেড়েছে৷ জুলাইয়ে হোলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলা তার প্রমাণ৷ বাংলাদেশ সন্ত্রাসের ঝুঁকিতেই আছে কারণ সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সদস্যরা সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ে প্রবেশ করেছে৷ এটা ঝুঁকির সবচেয়ে বড় কারণ৷''

অডিও শুনুন 01:09
এখন লাইভ
01:09 মিনিট

‘সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সদস্যরা সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ে প্রবেশ করেছে বাংলাদেশে’

২০১৫ সালে বিশ্বজুড়ে সংঘটিত সন্ত্রাসী হামলার ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা এবারের প্রতিবেদনে ১০ পয়েন্টের মধ্যে ৯ দশমিক ৯৬ পয়েন্ট নিয়ে সন্ত্রাসবাদ ঝুঁকির শীর্ষে আছে ইরাক৷ গতবছর সংঘটিত সন্ত্রাসী হামলার ২০ শতাংশই ঘটেছে যুদ্ধবিধ্বস্ত এ দেশটিতে৷ শীর্ষ দশে থাকা বাকি দেশগুলো যথাক্রমে আফগানিস্তান, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, সিরিয়া, ইয়েমেন, সোমালিয়া, ভারত, মিশর ও লিবিয়া৷ আর সারা বিশ্বে সংঘটিত সন্ত্রাসী হামলায় যে ক্ষতি হয়েছে তার আর্থিক মূল্য ৮ হাজার ৯৬০ কোটি ডলারের সমপরিমাণ৷

সারা বিশ্বে সংঘটিত মোট সন্ত্রাসী হামলার ১৪ শতাংশ আফগানিস্তানে, ৮ শতাংশ পাকিস্তানে এবং ৭ শতাংশ ভারতে ঘটেছে৷ বাংলাদেশে সংঘটিত হয়েছে ৪ শতাংশ৷

১০ পয়েন্টের মধ্যে আফগানিস্তান পেয়েছে ৯ দশমিক ৪৪৪ পয়েন্ট, নাইজেরিয়া ৯ দশমিক ৩১৪, পাকিস্তান ৮ দশমিক ৬১৩, সিরিয়া ৮ দশমিক ৫৮৭, ভারত ৭ দশমিক ৪৮৪ এবং বাংলাদেশ ৬ দশমিক ৪৭৯ পয়েন্ট৷

বাংলাদেশে সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকি কি সত্যিই বেড়ে চলেছে বলে আপনার মনে হয়? লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

বিজ্ঞাপন