বাংলাদেশে রোজা শুরু | বিশ্ব | DW | 24.04.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

রমজান

বাংলাদেশে রোজা শুরু

পবিত্র রমজান মাসের চাঁদ দেখা গেছে৷ শনিবার থেকে রোজা শুরু৷ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বরাত দিয়ে চাঁদ দেখার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে স্থানীয় গণমাধ্যম৷ 

শুক্রবার সন্ধ্যায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক শেষে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নুরুল ইসলাম শনিবার থেকে রোজা শুরুর ঘোষণা দেন বলে জানিয়েছে ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷  ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়৷ 

দৈনিক যুগান্তরের রিপোর্ট বলছে, ময়মনসিংহ ও জামালপুরসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে চাঁদ দেখার খবর পাওয়া গেছে৷

ধর্ম মন্ত্রণলায়ের নির্দেশনা
তবে রমজান মাসে তারাবির নামাজ ঘরে আদায় করতে হবে৷ এ সংক্রান্ত নির্দেশনা বিজ্ঞপ্তি আকারে আগেই দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়৷ এছাড়া বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এ মাসে ইফতার মাহফিলও আয়োজন করা যাবে না৷
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এশার জামাতে ইমাম, মুয়াজ্জিন, খতিব, খাদিম ও দুই জন হাফেজসহ ১২ জন মসজিদে নামাজ আদায় করতে পারবেন৷ তারাই মসজিদে তারাবির নামাজ পড়বেন৷ বাকিরা বাসায় নামাজ আদায় করবেন৷ মূলত করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে৷  একইসঙ্গে ইফতার মাহফিল আয়োজনের ওপরও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে৷

 

‘‘প্রত্যেকের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা নিশ্চিত করার স্বার্থে রমজান মাসে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ইফতার মাহফিলের আয়োজন বা যোগদান করতে পারবেন না,’’ বলা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে৷ 
নির্দেশনা না মানলে স্থানীয় প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী আইনগত ব্যবস্থা নেবে বলে জানানো হয়েছে৷ 
এ বিষয়ে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ আগেই বলেছেন, ‘‘মসজিদে তারাবির নামাজ চালু থাকবে৷ তবে বাইরে থেকে কেউ অংশগ্রহণ করতে পারবেন না৷ কারণ, এমনিতেই একটি মসজিদে ১২ জনের বেশি লোক থাকেন৷’’
এদিকে, সৌদি আরব ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো ছাড়াও পৃথিবীর অনেক দেশে শুক্রবার থেকে রোজা শুরু হয়েছে৷ জার্মানিতেও আজ প্রথম রোজা পালন করছেন মুসল্লিরা৷

রমজান উপলক্ষে বিশ্বনেতাদের বার্তা
জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল রমজান উপলক্ষে মুসলিমদের উদ্দেশে বিবৃতি দিয়েছেন৷ বৃহস্পতিবার প্রকাশিত বিবৃতির শুরুতে তিনি মুসলিমদের প্রতি উষ্ণ অভিবাদন জানান৷ রমজানে তাদের শান্তি ও সুস্থতা কামনা করেন৷ 

‘‘পৃথিবীর সবজায়গার মতো এ দেশেও মুসলিমরা রমজান মাসে একটি বিশেষ পরিস্থিতি পার করছেন৷ তাই আমি আশা করছি, এ সময়টা আপনারা আপনাদের পরিবারকে নিয়ে শান্তিপূর্ণ, মহিমান্বিত ও সুস্থ সময় কাটাতে পারবেন,’’ বিবৃতিতে বলা হয়৷  

জার্মানির সরকার প্রধান বলেন, রমজান হলো মুসলিমদের একতাবদ্ধ হবার সময়৷ যারা অভাবে আছেন, তাদের সাহায্য করার সময়৷ বিশেষ করে একইসঙ্গে সন্ধ্যায় নানা ধর্মের মানুষের সঙ্গে মিলে ইফতার সামাজিক সহমর্মিতা ও একতার প্রকৃষ্ট উদাহরণ৷  

‘‘তবে এ বছর তা সম্ভব নয়৷ কারণ, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব আমাদের সব ঐতিহ্য, উৎসব, সমাবেশ এবং স্বাভাবিক ধর্মীয় আচারকে ব্যাহত করেছে৷ আমি মনে করি, এই বিশেষ সময়ে আপনারা আপনাদের বিশ্বাস ও ধর্মের প্রতি নিষ্ঠা বজায় রাখতে সক্ষম হবেন৷’’

ক্যানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো তাঁর দেশ ও বিশ্বের সব মুসলিমদের রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন৷ বৃহস্পতিবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি আশা প্রকাশ করেন, মুসলিমরা করোনা ভাইরাস ঠেকাতে তাদের দায়িত্ব পালন করবেন৷ 

‘‘ঐতিহ্যগতভাবে রমজানে সবাই একসঙ্গে হন৷ পরিবারের সদস্য ও বন্ধুরা মিলে একসঙ্গে পালন করেন, রোজা রাখেন এবং ইফতার করেন৷ এ বছর কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের বিরুদ্ধে চলমান লড়াইয়ের কারণে রমজান ভিন্ন হবে এবং সবাই বাসায় থেকে, স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ মানবেন৷’’
তিনি বলেন, ‘‘মসজিদগুলো অনলাইনে জুম্মার নামাজ প্রচার থেকে শুরু করে প্রযুক্তির সহায়তায় সবাই ইফতারে মিলিত হবেন৷ ক্যানাডার মুসলিমরা তাদের দায়িত্ব পালন করবেন৷’’  

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক ধর্মীয় আচারে বড় আকারের পরিবর্তন মেনে রমজান পালন করায় মুসলিমদের ধন্যবাদ জানান৷ তিনি বলেন, ‘‘রমজান শুরু হচ্ছে, করোনা ভাইরাসের কারণে অনেক মুসলিম তেমন আনন্দ নিয়ে এই মাস পালন করতে পারবেন না, যেমনটি তারা অন্য সময়ে করে থাকেন৷ বাসায় থাকার জন্য ধন্যবাদ,’’ টুইটে বলেন তিনি৷ 

এদিকে, আরব নেতারা নিজেদের মধ্যে রমজানের শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন৷ তারা করোনার এই বিশেষ সময়ে সবার সুস্থতা কামনা করেন৷ 
জেডএ/এসিবি 
 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়