বাংলাদেশে বজ্রপাতে নিহত ২২ | বিশ্ব | DW | 20.06.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

বাংলাদেশে বজ্রপাতে নিহত ২২

বাংলাদেশে গত দু'দিনে বজ্রপাতের আঘাতে কমপক্ষে ২২ ব্যক্তি নিহত হয়েছেন৷ মৌসুমি বৃষ্টির কারণে সৃষ্ট ভূমিধসে বেশ কয়েকজন প্রাণ হারানোর এক সপ্তাহ পর বজ্রপাতের আঘাতে মৃত্যুর এই ঘটনা ঘটলো৷

রবিবার এবং সোমবার ঝড়বৃষ্টির সময় বজ্রপাতের আঘাতে এসব প্রাণহানি হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান রিয়াজ আহমেদ৷ নিহতদের মধ্যে এবং দম্পতি এবং তাঁদের সন্তান রয়েছেন যারা বজ্রপাতের সময় বাদাম ক্ষেতে কাজ করছিলেন৷

বাংলাদেশে প্রতিবছর বজ্রপাতে অসংখ্য মানুষ মারা যান৷ সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মৃতের সংখ্যা বেড়েছে যার পেছনে জলবায়ু পরিবর্তনের ভূমিকা রয়ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ পাশাপাশি বনের পরিমাণ এবং উঁচু গাছেরসংখ্যা কমে যাওয়াকেও বজ্রপাতে মৃত্যুর কারণ মনে করছেন তাঁরা৷ বড় গাছগুলো আগে বিজলীদণ্ডের কাজ করতো৷ ফলে প্রাণহানি কম হতো৷

গতবছর বজ্রপাতে দু'শোর বেশি মানুষের প্রাণহানির পর এটিকে প্রাকৃতিক দুর্যোগ হিসেবে ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ৷ সেবছরের মে মাসে একদিনেই বজ্রপাতে প্রাণ হারান ৮২ ব্যক্তি৷

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বজ্রপাতের মৃতের সংখ্যা আনুষ্ঠানিক হিসেবের চেয়ে অনেক বেশি৷ কেননা অনেকক্ষেত্রে এ ধরনের মৃত্যুর খবর কর্তৃপক্ষকে জানানো হয় না৷ একজন স্বাধীন গবেষকের হিসেব অনুযায়ী, শুধুমাত্র গতবছর বজ্রপাতের মৃতের সংখ্যা কমপক্ষে ৩৪৯৷

এরকম প্রাণহানি এড়াতে গতবছর বিশেষজ্ঞরা গবেষণা করছেন এবং শেষমেষ দেশজুড়ে দশলাখ নতুন তাল গাছ লাগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ পাশাপাশি আবহাওয়া অধিদপ্তর বজ্রপাতের আঘাত এড়াতে করণীয় নিয়ে ২০ হাজার স্কুল শিক্ষার্থীকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে৷

উল্লেখ্য, গতসপ্তাহে বাংলাদেশে দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ভূমিধসে ১৬০ জনের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন এবং কয়েকশত  ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে৷ প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট ভূমিধসে ক্ষতিগ্রস্তরা এখনো পর্যাপ্ত ত্রাণ সহায়তা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ রয়েছে৷

এআই/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন