বাংলাদেশি গৃহকর্মী হত্যার দায়ে সৌদি গৃহকর্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড | বিশ্ব | DW | 16.02.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

বাংলাদেশি গৃহকর্মী হত্যার দায়ে সৌদি গৃহকর্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড

বাংলাদেশি গৃহকর্মী আবিরন বেগম হত্যার দায়ে সৌদি আরবের এক গৃহকর্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড ও তার স্বামী-সন্তানের কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছে রিয়াদের অপরাধ আদালত৷ প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয় সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছে৷

সৌদি আরবে বাংলাদেশি নারী শ্রমিকরা প্রায় নির্যাতনের শিকার হয়

সৌদি আরবে বাংলাদেশি নারী শ্রমিকরা প্রায় নির্যাতনের শিকার হয়

রোববার আলোচিত এ মামলার রায় ঘোষণা করা হয় বলে মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে৷ এতে বলা হয়, ‘‘মামলার প্রধান আসামি গৃহকত্রী আয়েশা আল জিজানির বিরুদ্ধে ইচ্ছাকৃত এবং সুনির্দিষ্টভাবে হত্যাকাণ্ড সংঘটনের দায়ে আদালত ‘কেসাস’ (জানের বদলে জান) এর রায় প্রদান করেছে৷’’

ভিডিও দেখুন 01:43

সৌদি আরবে বাংলাদেশি নারী কর্মীদের নির্যাতন

হত্যাকাণ্ডের আলামত ধ্বংস, গৃহকর্মীকে নিজ বাসার বাইরে অবৈধভাবে কাজে পাঠানো এবং গৃহকর্মীর চিকিৎসার ব্যবস্থা না করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় অপর এক আসামি গৃহস্বামী বাসেম সালেমকে তিন বছর দুই মাস কারাদণ্ড এবং ৫০ হাজার সৌদি রিয়াল জরিমানা করা হয়েছে৷ মামলার আরেক আসামি তাদের সন্তান ওয়ালিদ বাসেদ সালেমকে হত্যাকাণ্ডে অংশগ্রহণের প্রমাণ পাওয়া না গেলেও গৃহকর্মী আবিরন বেগমকে বিভিন্নভাবে অসহযোগিতার প্রমাণ পাওয়ায় তাকে সাত মাস কিশোর সংশোধনাগার কেন্দ্রে কারাভোগের সাজা দেওয়া হয়৷

খুলনার পাইকগাছার আবিরন ঢাকার একটি রিক্রুটিংএজেন্সির মাধ্যমে ২০১৭ সালে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন বলে জানান ব্র্যাকের অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান৷ ২০১৯ সালের ২৪ মার্চ আবিরনকে হত্যা করা হয়৷ মরদেহের সঙ্গে থাকা আবিরনের মৃত্যু সনদে মৃত্যুর কারণের জায়গায় মার্ডার (হত্যা) লেখা ছিল৷ রায়ের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে আবিরনের পরিবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘আবিরনকে শুরু থেকেই নির্যাতন করা হয়৷ মরদেহ যখন দেশে আসে, তা এতটাই বীভৎস ছিল যে দেখার মতো ছিল না৷’’

এনএস/জেডএইচ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

২০১৯ সালের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়