‘বাংলাদেশকে কেন ভারতের আশায় বসে থাকতে হবে?’ | বিশ্ব | DW | 16.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাঠক ভাবনা

‘বাংলাদেশকে কেন ভারতের আশায় বসে থাকতে হবে?’

এই প্রশ্ন এক পাঠকের৷ ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ এবং বাংলাদেশে পেঁয়াজ সংকট নিয়ে আরো মন্তব্য এসেছে ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায়৷

বাংলাদেশ থেকে শাহীন আলম লিখেছেন, ‘‘আমাদের উচিত ভারতীয় পেঁয়াজ ব্যবহার পুরোপুরি বন্ধ করে অন্যান্য দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা৷ ভারত পণ্যের মাধ্যমে বাংলাদেশকে চাপে রাখতে চাচ্ছে৷’’ এর উত্তরে উর্মি নাগ লিখেছেন, ‘‘আমাদের ভারতেও পেঁয়াজের দাম বেড়েছে৷’’ জয় বিশ্বাসও লিখেছেন, ‘‘ভারতেও পেঁয়াজের সাপ্লাই নেই, এখানেও পেঁয়াজের দাম আকাশচুম্বি৷’’

এহসান আহমেদের প্রশ্ন, ‘‘বাংলাদেশে পেঁয়াজ উৎপাদন সত্ত্বেও এত পেঁয়াজ আমদানি করতে হয় কেন?’’ পাঠক বর্ণমালার ধারণা, ভারতে দাম বাড়ার কথা শুনেই বাংলাদেশে পেয়াজের দাম আকাশ ছোঁয়া৷

আর পাঠক ফুয়াদ রহমান পেঁয়াজের মূল্য বাড়ার জন্য সরকারকে দায়ী করে লিখেছেন, ‘‘গত বছর ভারত আগাম ঘোষণা ছাড়া পেয়াঁজ রপ্তানি বন্ধ করার পরও কেন বাংলাদেশকে শুধু ভারতের আশায় বসে থাকতে হবে?’’

পাঠক নিজামউদ্দিনের প্রশ্ন, ‘‘বাংলাদেশ এভাবে কতবার পেঁয়াজের জন্য অপ্রস্তুত থাকবে?’’ তবে রাশেদ জামান কিন্তু বাংলাদেশের জন্য এটাকে ইতিবাচক মনে করছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘কয়েক বছর কষ্ট করলে ভারতের উপর বাংলাদেশের নির্ভরতা কমবে,  দেশে পেঁয়াজ উৎপাদন বাড়বে এবং কৃষকও ন্যায্য দাম পাবে৷’’

এদিকে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ নিয়ে পাঠক আবদুর রহিম আবু আনাস পুরো বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবেই দেখছেন, কারণ, ‘‘ভারত গরু রপ্তানি বন্ধ করার পর সারাদেশে অসংখ্য গরুর ফার্ম গড়ে উঠেছে, বিশাল কর্মসংস্থান হয়েছে৷’’

তবে পাঠক রিয়াজুল রেজা মনে করেন, ‘‘পূর্ব সিদ্ধান্ত ছাড়া বিনা নোটিশে বেনাপোল সীমান্তে পেঁয়াজের গাড়ি আটকে দেয়া কোনো প্রকার আন্তর্জাতিক বিজনেস পলিসিতে পড়ে না৷’’

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন