বসুন্ধরা এমডির বিরুদ্ধে মামলা, দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা | বিশ্ব | DW | 27.04.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

বসুন্ধরা এমডির বিরুদ্ধে মামলা, দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

ঢাকার গুলশানে এক তরুণীর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় ‘আত্মহত্যায় প্ররোচনার' অভিযোগে বাংলাদেশের শিল্প প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে৷ তার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে আদালত৷

Symbolbild | Sterbehilfe

প্রতীকী ছবি

বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানিয়েছে, পুলিশের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার ঢাকার মহানগর হাকিম আদালতে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করা হলে বিচারক শহীদুল ইসলাম তা মঞ্জুর করেন৷

ঢাকার মহানগর পুলিশের অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপ-কমিশনার জাফর হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে এ তথ্য জানিয়েছেন৷

সোমবার সন্ধ্যায় গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে এক তরুণীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ৷ পরে রাত দেড়টার দিকে গুলশান থানায় মামলা করেন তরুণীর বোন৷ মামলায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহানের বিরুদ্ধে ‘আত্মহত্যায় প্ররোচনার' অভিযোগ আনেন তিনি৷

পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, তরুণীর সঙ্গে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের ‘প্রেমের সম্পর্ক' ছিল৷ তবে অভিযোগের বিষয়ে সায়েম সোবহানের বক্তব্য জানতে পারেনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷ পুলিশের গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার নাজমুল হাসান ফিরোজ সংবাদ মাধ্যমটিকে বলেন, মারা যাওয়া তরুণী ঢাকার একটি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন৷ ‘‘তিনি এখানে থেকে পড়াশোনা করতেন৷ গুলশানের ওই ফ্ল্যাটে তিনি একাই থাকতেন৷ মাস দুয়েক আগে এক লাখ টাকায় ওই ফ্ল্যাট ভাড়া নেন৷ সে সময় দুই মাসের ভাড়া অগ্রিম দেওয়া হয়,'' বলেন নাজমুল হাসান৷ পুলিশ ফ্ল্যাটের সিসি ক্যামেরার ভিডিও এবং তরুণীর ব্যবহৃত ডিজিটাল ডিভাইসগুলো জব্দ করেছে বলেও বিডিনিউজকে জানান তিনি৷

এফএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়