বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশে সাকিব-মুস্তাফিজ-মুশফিক | বিশ্ব | DW | 20.01.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ক্রিকেট

বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশে সাকিব-মুস্তাফিজ-মুশফিক

ওয়ানডে ক্রিকেট সবচেয়ে ভালো খেলে বাংলাদেশ৷ টি-টোয়েন্টির বর্ষসেরা দলের পর মুস্তাফিজুর জায়গা করে নিয়েছেন ৫০ ওভারের একাদশেও৷ তার সঙ্গে আছেন সেরা অলরাউন্ডার সাকিব ও কিপার-ব্যাটসম্যান মুশফিক৷ 

সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান

সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান

 বৃহস্পতিবার ক্রিকেটের বিশ্ব সংস্থার ওয়েবসাইটে ঘোষণা করা হয়েছে ২০২১ সালের এই বর্ষসেরা একাদশ৷ বাংলাদেশেরই সবচেয়ে বেশি তিনজন খেলোয়াড় জায়গা পেয়েছে৷ আর দুজন করে আছেন পাকিস্তান, সাউথ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা ও আয়ারল্যান্ডের৷

ব্যাট-বল হাতে আরও একবার বছর জুড়ে আলো ছড়ান সাকিব আল হাসান৷ গত বছর ৫০ ওভারের এই সংস্করণে ৯ ম্যাচ খেলে তিনি ৩৯.৫৭ গড়ে রান করেন ২৭৭, আছে দুটি হাফ সেঞ্চুরি৷আর বোলিংয়ে নেন ১৭ উইকেট, ১৭.৫২ গড়ে৷

গত জানুয়ারিতে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নেমেই বাংলাদেশের জয়ের নায়ক ছিলেন সাকিব৷ ২০১৯ বিশ্বকাপের পর প্রথম ওয়ানডে খেলতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনি ৮ রানে ৪ উইকেট নেওয়ার পর ব্যাটিংয়ে করেন ১৯ রান৷ পরে জিতে নেন সিরিজ সেরার পুরস্কারও৷ ঘরের মাঠে বাংলাদেশের ৩-০ ব্যবধানে জেতা  সিরিজে ব্যাট হাতে ১১৩ রান করার পাশাপাশি বাঁহাতি স্পিনে নেন ৬ উইকেট৷

ওয়ানডের বর্সসেরা খেলোয়াড় হওয়ার লড়াইয়েও আছেন ৩৪ বছর বয়সি ক্রিকেটার সাকিব৷ সেখানে তার সঙ্গে লড়াইয়ে আছেন ইয়ানেমান মালান, বাবর আজম ও পল স্টার্লিং৷

সাকিবের মতো মুশফিকও ৯ ম্যাচ খেলেছেন গত বছর ৷ সবসময়ের মতোই নিজের ঘরানার ব্যাটিংয়ে দলকে পথ দেখিয়েছেন ৷ গত বছর রানের জন্য ছুটেছেন, মাঝে খেলেছেন চোখধাঁধানো কিছু শট ৷ গড়ে মোট রান করেছেন ৪০৭, ৫৮.১৪ ৷

আগের দিন ঘোষিত টি-টোয়েন্টির বর্ষসেরা একাদশে জায়গা করে নেওয়া মুস্তাফিজের  পারফরম্যান্সের বিচারে বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে থাকা একরকম প্রত্যাশিতই ছিল ৷ রঙিন জার্সির এই সংস্করণেও বছর জুড়ে বল হাতে গতি-বৈচিত্র্যে দাপট দেখিয়েছেন তিনি ৷

ধারাবাহিকভাবে মিলেছে সাফল্যও ৷ ১০ ম্যাচে নিয়েছেন ১৮ উইকেট, ২১.৫৫ গড়ে ৷ তার নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ব্যাটসম্যানদের রান নিতে ধুঁকতে হযেছে ৷ ওভারপ্রতি রান দিয়েছেন ৫.০৩ ৷

টি-টোয়েন্টি একাদশে অধিনায়কের মর্যাদা পাওয়া বাবর আজম ওয়ানডে দলেরও নেতৃত্ব পেয়েছেন৷ বছর জুড়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং পারফরম্যান্স দেখিয়েই এখানে আছেন তিনি৷

বাবরের সঙ্গী হিসেবে আছেন তার জাতীয় দল সতীর্থ ফখর জামান৷

আয়ারল্যান্ডের দুই খেলোয়াড়ের একজন হলেন পল স্টার্লিং৷ গত বছরে ওয়ানডের সর্বোচ্চ স্কোরার তিনিই৷ একাদশে ঠাঁই পাওয়া আরেক আইরিশ খেলোয়াড় স্পিনার সিমি সিং৷ দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে জায়গা পাওয়া দুজন হলেন ইয়ানেমান মালান ও রাসি ফন ডার ডাসেন৷ পেস আক্রমণে মুস্তাফিজের সঙ্গী লঙ্কান বোলার দুশমন্থ চামিরা৷ ১৪ ম্যাচে ২৯.৩০ গড়ে  উইকেট নিয়েছেন ২০টি৷ একবার নিয়েছেন পাঁচ উইকেট৷

শ্রীলঙ্কার আরেকজন ভানিন্দু হাসারাঙ্গা৷ টি-টোয়েন্টি একাদশেও জায়গা পাওয়া এই ক্রিকেটার ব্যাট-বল হাতে নিজেকে দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্যে পরিণত করেছেন৷

ওয়ানডের বর্ষসেরা একাদশ: পল স্টার্লিং (আয়ারল্যান্ড), ইয়ানেমান মালান (দক্ষিণ আফ্রিকা), বাবর আজম (অধিনায়ক, পাকিস্তান), ফখর জামান (পাকিস্তান), রাসি ফন ডার ডাসেন (দক্ষিণ আফ্রিকা), সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ), মুশফিকুর রহিম (উইকেটকিপার, বাংলাদেশ), ভানিন্দু হাসারাঙ্গা (শ্রীলঙ্কা), মুস্তাফিজুর রহমান (বাংলাদেশ), সিমি সিং (আয়ারল্যান্ড), দুশমন্থ চামিরা (শ্রীলঙ্কা)৷

এনএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন