বড় শহরগুলিতে কমছে গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণ | বিশ্ব | DW | 14.09.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জলবায়ু পরিবর্তন

বড় শহরগুলিতে কমছে গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণ

গত পাঁচ বছরে বিশ্বের ২৭টি বড় শহরে গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণ কমেছে৷ কিন্তু তালিকার দিকে একটু ভালো করে নজর দিলে বোঝা যায়, এখনো উদযাপনের সময় আসেনি৷

এই তালিকায় আছে বার্লিন, লন্ডন, লস এঞ্জেলেস, নিউ ইয়র্ক এবং প্যারিসের নাম৷ পাঁচ বছর আগের তুলনায় এখন নিঃসরণের হার অন্তত ১০ শতাংশ কম৷ বৃহস্পতিবার সান ফ্রান্সিসকোতে এক জলবায়ু সম্মেলনে দেশগুলো এ পরিসংখ্যান উপস্থাপন করে৷

জীবাশ্ম-জ্বালানিভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কমানো এবং গণপরিবহনের আওতা বাড়ানোতেই এই মাইলফলক অর্জন সম্ভব হয়েছে বলে মনে করেন বিশ্বের বড় শহরগুলোর জোট সি-৪০-এর নেতারা৷ প্যারিসের মেয়র আনে হিডালগো বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে শেষ পর্যন্ত ভালো কোনো খবর দিতে পারা’ খুব আনন্দের ব্যাপার৷

গ্যাস নিঃসরণ কমলেও এর ফলে অর্থনীতিতে প্রভাব পড়ছে না৷ ফলে হিডালগো মনে করেন, ‘‘আমরা প্রমাণ করতে পেরেছি পরিবেশের ক্ষতি না করেও কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং উন্নয়ন সম্ভব৷’’

শূন্যস্থান পূরণ

বৈশ্বিক তাপমাত্রা কমানোর উদ্যোগ ত্বরান্বিত করতে সান ফ্রান্সিসকোর এই সম্মেলনে যোগ দেন কয়েক হাজার রাজনীতিবিদ, জলবায়ু অ্যাক্টিভিস্ট এবং ব্যবসায়ী নেতারা৷

২০১৫ সালের প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাম প্রত্যাহার করায় যে শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে, তা পূরণে সচেষ্ট তারা৷ সবচেয়ে বেশি গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণের তালিকায় চীনের পরই আছে যুক্তরাষ্ট্রের নাম৷

প্যারিস চুক্তি অনুসারে বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে আটকে রাখার লক্ষ্যে কাজ করতে সম্মত হয় দেশগুলো৷ কিন্তু বিশেষজ্ঞরা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, শিগগিরই হয়তো বৈশ্বিক উষ্ণতা এ লক্ষ্য অতিক্রম করতে পারে৷

অনুপস্থিত উন্নয়নশীল দেশগুলো

তবে বড় শহরগুলোর সাফল্যে এখনই খুশি হওয়ার মতো কিছু দেখছেন না বিশ্লেষকরা৷ তাঁরা বলছেন, যে ২৭টি শহর নিঃসরণ কমানোর দাবি করছে, সেসব শহর মিলিয়ে বাস করেন মাত্র সাড়ে পাঁচ কোটি মানুষ৷ উন্নয়নশীল কোনো দেশের কোনো শহরই এই তালিকায় নেই৷

সি-৪০ নেতারাও এই দুর্বলতা বিষয়ে অবগত আছেন৷ হিডালগো বলোন, ‘‘উন্নয়নশীল শহরগুলোসহ যেসব জায়গায় জরুরি ভিত্তিতে পরিবেশ ও জ্বালানি নিরাপত্তা প্রয়োজন, সেদিকে আমাদের সবার আগে নজর দিতে হবে৷’’

উন্নত দেশগুলোর সাফল্য সত্ত্বেও বিশেষজ্ঞদের আশংকা, অপেক্ষাকৃত দরিদ্র দেশগুলিতে আগামী বছরগুলোতে গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণ বেড়েই চলবে৷

এডিকে/এসিবি (এপি, এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন