বখাটের অত্যাচারে তরুণীর আত্নহত্যায় তোলপাড় | বিশ্ব | DW | 04.04.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বখাটের অত্যাচারে তরুণীর আত্নহত্যায় তোলপাড়

বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ খবর আজ বাংলাদেশের পত্রপত্রিকাগুলোতে ছাপা হয়েছে৷ তার মধ্যে একটি খবর সবগুলো দৈনিক পত্রিকায় বেশ গুরুত্ব পেয়েছে সেটা হচ্ছে, বখাটে যুবকদের অত্যাচারে এক তরুণীর আত্মহত্যার ঘটনা৷

default

বিদেশী স্কুলগুলোতে বিপরীত লিঙ্গের প্রতি সম্মানবোধ গড়ে তোলা হয় শিশুকাল থেকেই

বখাটেদের অত্যাচারে তরুণীর আত্মহত্যা

সমকাল এবং যুগান্তর খবরটিকে তাদের অনলাইন সংস্করণে প্রধান শিরোনাম করেছে৷ সমকাল ‘বখাটেদের উৎপাতে আরও এক ছাত্রীর আত্মহনন’ এই শিরোনামে লিখেছে, খিলগাঁওয়ের ১৪ বছরের স্কুল ছাত্রী উম্মে কুলসুম ইলোরা স্থানীয় বখাটে রেজাউল করিমের অত্যাচার থেকে বাঁচতে আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছে৷ শনিবার দুপুরে সে সবার অজান্তে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করে৷ তার মা হালিমা নিজাম জানিয়েছেন, রেজাউল করিম ও তার বন্ধুরা গত প্রায় এক বছর ধরে ইলোরাকে উত্যক্ত করে আসছিল৷ স্কুলে আসা যাওয়ার পথে তারা এই কাজ করতো বলে লেখা হয়েছে সমকালের প্রতিবেদনে৷ এতে আরও বলা হয়েছে, বখাটে যুবক রেজাউল করিমের বাবা মাকে এই ঘটনা জানানোর পর ইলোরার মা হালিমা নিজামকেও হুমকি দিয়েছিল সে৷ এই ঘটনায় ইলোরার বাবা একটি আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলা দায়ের করেছেন৷

বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংকট

স্বাভাবিকভাবেই বিদ্যুত ও গ্যাস সংকটের বিষয়টিতে এখনও গুরুত্ব দিয়ে আসছে পত্রিকাগুলো৷ এই নিয়ে তারা বিশেষ প্রতিবেদনও ছাপছে৷ যেমন প্রথম আলো ‘বিদ্যুতের জন্য গ্যাস বৃদ্ধির উদ্যোগ পুরো কার্যকর হয়নি’ এই শিরোনামে একটি প্রতিবেদন ছেপেছে৷ এতে বলা হয়েছে৷ পাঁচটি সার কারখানা বন্ধ করে বিদ্যুৎ উৎপাদনে গ্যাস সরবরাহ বাড়ানোর সরকারি উদ্যোগ পুরোপুরি কার্যকর হয়নি৷ গতকাল পর্যন্ত দুটি কারখানা—কাফকো ও চিটাগাং ইউরিয়া সার কারখানা বন্ধ করা হয়েছে৷ পলাশ, ঘোড়াশাল ও যমুনা সার কারখানায় গতকালও সীমিত পরিমাণ গ্যাস সরবরাহ করা হয়েছে৷ আজ রোববার রাত নাগাদ এগুলো বন্ধ হতে পারে বলে জানা গেছে৷

এছাড়া ইত্তেফাক এক প্রতিবেদনে বলেছে, ক্রমবর্ধমান বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংকটের কারণে শিল্পখাতে বিপর্যয়ের আশংকা তৈরি হয়েছে৷ রফতানিমুখী শিল্পের বিনিয়োগকারীরা জানিয়েছেন, চলমান সংকটকে সহনীয় পর্যায়ে কমিয়ে আনা সম্ভব না হলে রফতানি বাণিজ্য ও কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে বিপর্যয় অবধারিত৷ তবে শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন, দেশের বিদ্যুৎ সংকট কাটাতে সরকার বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে৷ তাঁর এই বক্তব্যও দৈনিক পত্রিকাগুলোতে ছাপা হয়েছে৷

চট্টগ্রামে পানির সংকট

এদিকে বিডি নিউজ একটি প্রতিবেদন ছেপেছে যাতে চট্টগ্রাম মহানগরীতে তীব্র পানির সংকটের কথা তুলে ধরা হয়েছে৷ এতে বলা হয়েছে চাহিদা যা রয়েছে তার অর্ধেকও মেটাতে পারছে না চট্টগ্রাম ওয়াসা৷ ওয়াসার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পানির চাহিদা দৈনিক প্রায় পঞ্চাশ কোটি লিটার৷ এর বিপরীতে ওয়াসা সরবরাহ করতে পারে মাত্র বিশ কোটি লিটার৷ কিন্তু বিদ্যুৎ ব্যবস্থাপনার (লোডশেডিং) কারণে প্রতিদিন স্বাভাবিকের চেয়ে ৫০ লাখ লিটার কম পানি উৎপাদিত হচ্ছে৷

প্রতিবেদক: রিয়াজুল ইসলাম, সম্পাদনা: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সংশ্লিষ্ট বিষয়