ফ্রান্সে হয় নারী-পুরুষের সমান পারিশ্রমিক, নয়ত জরিমানা | বিশ্ব | DW | 09.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ফ্রান্স

ফ্রান্সে হয় নারী-পুরুষের সমান পারিশ্রমিক, নয়ত জরিমানা

‘জেন্ডার পে গ্যাপ' বা পারিশ্রমিকে লিঙ্গ ভিত্তিক ব্যবধান৷ তা ঘোচানোর জন্য ফরাসি সরকার এবার সংশ্লিষ্ট কোম্পানিগুলির জরিমানার ব্যবস্থা করতে চলেছে৷

ফরাসি প্রধানমন্ত্রী এদুয়ার ফিলিপ বুধবার নতুন নিয়মাবলী ঘোষণা করেন, যার লক্ষ্য হবে ফরাসি কোম্পানিগুলিকে নারী-পুরুষের পারিশ্রমিকের মধ্যে ব্যবধান ঘোচাতে বাধ্য করা৷ কোম্পানিগুলি এ কাজের জন্য ২০২০ সাল অবধি সময় পাবে, তারপর গাফিলতির ক্ষেত্রে জরিমানা আরোপ করা হবে৷ 

ফিলিপ প্যারিসে তাঁর বাসভবনে শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবর্গ ও কোম্পানির কর্মকর্তাদের সঙ্গে একটি সাক্ষাতের অবকাশে বলেন যে, বর্তমান নিয়মাবলী অনুযায়ী কোম্পানিগুলি ‘‘বড় বেশি গড়িমসি করছে৷'' ফরাসি ‘ল্য প্যারিজিয়্যাঁ' দৈনিক এ খবর দেয়৷ উল্লেখ্য, ফ্রান্সে গত ৪৫ বছর ধরে নারী-পুরুষের সমান পারিশ্রমিক সংক্রান্ত আইনকানুন রয়েছে, কিন্তু তা সত্ত্বেও সেদেশে পুরুষরা একই কাজের জন্য মহিলাদের চেয়ে গড়ে নয় শতাংশ বেশি পারিশ্রমিক পেয়ে থাকেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

‘‘পারিশ্রমিকের ক্ষেত্রে এ ধরনের অযৌক্তিক ব্যবধান নিছক বৈষম্য এবং বিষয়টিকে কেন্দ্র করে একটি আইনগত অস্ত্রসম্ভার থাকা সত্ত্বেও বিশেষ প্রগতি অর্জিত হচ্ছে না,'' বলে ফরাসি শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে মন্তব্য করা হয়েছে৷ সে কারণে বিভিন্ন নতুন পদক্ষেপের কথা ভাবা হয়েছে, যেমন ৫০ জনের বেশি কর্মীবিশিষ্ট প্রতিটি কোম্পানিকে পারিশ্রমিকের বৈষম্যের উপর নজর রাখার জন্য একটি বিশেষ সফ্টওয়্যার ব্যবহার করতে হবে৷

সুইজারল্যান্ড ও লুক্সেমবুর্গে ইতিমধ্যেই এ ধরনের সফটওয়্যার চালু আছে৷ এছাড়া ফরাসি সরকার পারিশ্রমিকের ব্যবধান দূরীকরণ সংক্রান্ত আইন মেনে চলা হচ্ছে কিনা, তা দেখার জন্য অঘোষিত পরিদর্শনের ব্যবস্থা করবে৷

ফ্রান্সের জন্য প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁর পাঁচশালা পরিকল্পনার একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হলো শ্রম ক্ষেত্রে লিঙ্গবৈষম্য দূর করা৷ সরকার এ কারণে আগামী কয়েক মাস ধরে বিশেষজ্ঞ, শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবর্গ ও শিল্পপ্রতিনিধিদের সঙ্গে একাধিক গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করবেন ও সেই অনুযায়ী নতুন আইন প্রণয়নের কথা ভাববেন৷

বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম ২০১৭ সালের শেষে যে জেন্ডার গ্যাপ রিপোর্ট পেশ করে, তা অনুযায়ী বিশ্বব্যাপী কর্মক্ষেত্রে মহিলাদের পুরুষদের সমান পারিশ্রমিক পেতে আরো ২১৭ বছর সময় লেগে যাবে৷ প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ডাবলিউইএফ রিপোর্টে বলা হয়েছিল যে, নারী-পুরুষের পারিশ্রমিক এক হতে ১৭০ বছর সময় লাগবে৷ অপরদিকে ২০১৫ সালের রিপোর্ট বলেছিল যে, সমান পারিশ্রমিক আসবে ১১৮ বছর পরে৷ তাহলে কি নারী-পুরুষের সমান পারিশ্রমিকের আশা মরীচিকার মতো ক্রমেই আরো দূরে মিলিয়ে যাচ্ছে?

এসি/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়