ফ্রান্সে ফের করোনা কার্ফিউ, জার্মানিতে কড়াকড়ি | বিশ্ব | DW | 15.10.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

ফ্রান্সে ফের করোনা কার্ফিউ, জার্মানিতে কড়াকড়ি

গোটা ইউরোপেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে। ফ্রান্স, জার্মানিতে ফের চালু হচ্ছে নিষেধাজ্ঞা। চেক রিপাবলিকে সংক্রমণের হার সব চেয়ে বেশি।

প্যারিস সহ দেশের আটটি শহরে নতুন করে করোনা কার্ফিউ জারি করলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাক্রোঁ। রাত নয়টা থেকে সকাল ছয়টা পর্যন্ত এই কার্ফিউ জারি থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি। বুধবার একটি টেলিভিশন বিবৃতিতে মাঁক্রো জানিয়েছেন, আগামী চার সপ্তাহ এই নিয়ম জারি থাকবে। তবে সরকার চাইছে তা আরও দুই সপ্তাহ বাড়াতে।

শুধু ফ্রান্স নয়, গোটা ইউরোপেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে। যার জেরে জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, স্পেন সহ একাধিক দেশ ফের করোনা প্রতিরোধে কড়া অবস্থান নিতে শুরু করেছে। জার্মান চ্যান্সেলার আঙ্গেলা ম্যার্কেলও নতুন নিয়মের কথা ঘোষণা করেছেন।

ম্যার্কেল জানিয়েছেন, যে সমস্ত এলাকায় সংক্রমণের পরিমাণ বেশি, সেখানে বার এবং রেস্তোরাঁগুলি বেশি রাত পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে না। বস্তুত, গত ২৪ ঘণ্টায় জার্মানিতে পাঁচ হাজার সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে। এপ্রিলের পরে এই প্রথম এক দিনে এত পরিমাণ সংক্রমণের ঘটনা ঘটল। তার পরেই ম্যার্কেল কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। বুধবার তিনি জানিয়েছেন, নতুন নিয়ম দ্রুত শুরু হবে জার্মানিতে।

তিনি জানিয়েছেন, যেখানে এক লাখের মধ্যে ৫০ জন বা তার বেশি মানুষের সংক্রমণ হবে, সেখানে রাত ১১টার মধ্যে রেস্তোরাঁ এবং বার বন্ধ করে দিতে হবে। শুধু তাই নয়, এক জায়গায় ১০ জনের বেশি জড়ো হতে পারবেন না। বাড়িতেও ১০ জনের বেশি মানুষকে ডাকা যাবে না বা জমায়েত করা যাবে না। নেদারল্যান্ডসেও কাফে, বার এবং রেস্তোরাঁর উপর নতুন নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে।  

বৃহস্পতিবার স্পেনের ক্যাটালোনিয়া অঞ্চলে ১৫ দিনের জন্য বার, রেস্তোরাঁ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। চেক রিপাবলিকেও নতুন করে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। ইউরোপের মধ্যে চেক রিপাবলিকেই এই মুহূর্তে সংক্রমণের হার সব চেয়ে বেশি।

বুধবার মাক্রোঁ জানিয়েছেন, ফ্রান্সে যাতে ফের করোনার সংক্রমণ ভয়াবহ চেহারা না নেয়, তার জন্য সকলকে সতর্ক হতে হবে। সে কারণেই নতুন নিয়ম চালু করা হয়েছে। সকলকে রাত নয়টার মধ্যে বাড়ি ঢুকে যেতে হবে। রেস্তোরাঁ, বার, কাফে সহ সমস্ত কিছু রাত নয়টার মধ্যে বন্ধ করে দিতে হবে। তবে এই সমস্ত নিয়ম ওই নয়টি শহরেই কেবল কার্যকর হবে। প্রয়োজনে শহরের সংখ্যা বাড়ানো হতে পারে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এএফপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন