ফ্রান্সে ‘আল্লাহু আকবর′ বলে শিক্ষককে জবাই, নয়জন গ্রেপ্তার | বিশ্ব | DW | 17.10.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

ফ্রান্সে ‘আল্লাহু আকবর' বলে শিক্ষককে জবাই, নয়জন গ্রেপ্তার

শুক্রবার প্যারিসের রাস্তায় এক কলেজ শিক্ষককে জবাই করেছে জঙ্গিবাদ সমর্থক এক তরুণ৷ পুলিশের গুলিতে নিহত হয় সে৷ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে  নয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷

ঘটনাস্থল পরিদর্শনে ফরাসি প্রেসিডেন্ট

ঘটনাস্থল পরিদর্শনে ফরাসি প্রেসিডেন্ট

তদন্তকারীরা জানার চেষ্টা করছেন হামলাকারী একাই ছিলো, নাকি এর পেছনে আরও অনেকে জড়িত৷ সে কারণেই এই নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য৷ চেচনিয়া বংশোদ্ভূত ওই হামলাকারীর বয়স মাত্র ১৮৷

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আততায়ী ‘আল্লাহু আকবর' বলে হামলা চালান৷ হত্যাকাণ্ডের শিকার ব্যক্তি কলেজের ইতিহাসের শিক্ষক৷ এই মাসের প্রথমদিনে তিনি তার মত প্রকাশের স্বাধীনতা বিষয়ক ক্লাসে মহানবী হযরত মোহাম্মদের কার্টুন দেখিয়েছিলেন শিক্ষার্থীদের৷

ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ এই ঘটনাকে ‘ইসলামি সন্ত্রাসবাদ' হিসেবে উল্লেখ করেছেন৷

ঘটনার পরপরই হামলাকারীর চার আত্মীয়কে আটক করেছে পুলিশ, এর মধ্যে এক শিশুও আছে৷ এরপর রাতভর অভিযান চালিয়ে আরও পাঁচজনকে আটক করে পুলিশ৷ এদের মধ্যে দ্যু বয়েস ডি অলনে কলেজের দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবক রয়েছেন৷

ফ্রান্সের মুসলিম নেতারা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, ফ্রান্সের ধর্মনিরপেক্ষ নীতি, মত প্রকাশের স্বাধীনতায় আঘাত হেনেছে এটি৷

বোর্দো মসজিদের ইমাম তারেক ওব্রু সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘‘একজন নিরপরাধ মানুষকে হত্যা করা কোন সভ্য মানুষ করতে পারে না, এটি বর্বরদের কাজ৷''  ইসলামি জঙ্গিরা এবং তাদের মতাদর্শকে যারা মেনে চলে, সেই সব মানুষ ফ্রান্সের মুসলিম সম্প্রদায়ের ভাবমূর্তিকে ধ্বংস করছে বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

তারেক আরও বলেন, ‘‘যেসব দিনে হামলা হয় না, আমরা আল্লাহকে ধন্যবাদ জানাই৷ এই  ধরনের ঘটনা সমাজ, শান্তি এবং ধর্ম, যা আমাদের একত্রিত করে, তার উপর হামলা৷''

এপিবি/জেডএ (এপি, এএফপি, রয়টার্স)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন