ফ্রান্সের মসজিদে হামলার দায় ৮৪ বছরের এক প্রবীণের | বিশ্ব | DW | 31.10.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ফ্রান্স

ফ্রান্সের মসজিদে হামলার দায় ৮৪ বছরের এক প্রবীণের

মসজিদে আগুন লাগানোর চেষ্টা এবং দুই ব্যক্তিকে গুলি করার অপরাধে ফ্রান্সে ৮৪ বছর বয়সি এই ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে৷

গত সোমবার ফ্রান্সের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর বাওয়ানের এক মসজিদের দরজায় আগুন লাগানোর চেষ্টা করেন ওই ব্যক্তি, এসময় দুজন তা দেখে ফেললে তাদের গুলি করেন তিনি৷

মসজিদে আগুন দেওয়ার চেষ্টা এবং ৭৪ ও ৭৮ বয়সি দুই ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে বুধবার ওই প্রবীণের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়৷ গুলিবিদ্ধরা বর্তমানে বাওয়ান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন, তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক৷

পুলিশ অভিযুক্ত ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ না করলেও স্থানীয় গণমাধ্যম তাকে মেরিন লে পেনের ডানপন্থি জাতীয় ফ্রন্ট দলের ৮৪ বছর বয়সি প্রাক্তন প্রার্থী হিসাবে চিহ্নিত করেছে৷ এই পার্টির একজন মুখপাত্র জার্মান সংবাদ সংস্থা ডিপিএকে বলেছেন, ‘‘এটি সত্য, তবে ২০১৫ সালে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল৷’’

তদন্তকারীরা বলছেন, অভিযুক্ত ব্যক্তি জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন প্যারিসের নটরডেম ক্যাথেড্রাল আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত করার প্রতিশোধ নিতেই তিনি এই কাজ করেছেন৷ কারণ তিনি বিশ্বাস করেন ওই ঘটনার জন্য মসুলমানরা দায়ী৷ যদিও কর্তৃপক্ষ বলছে, ক্যাথেড্রালের ওই আগুনটি একটি দুর্ঘটনা৷

৮৪ বছর বয়সি ওই ব্যক্তি পুলিশকে বলেছেন, তিনি কাউকে হত্যার পরিকল্পনা করেননি৷ এরপরও ধারণা করা হচ্ছে এই অপরাধের জন্য তাকে বাকি জীবন কারাগারে বন্দী থাকতে হবে৷

বাওয়ান শহরের প্রসিকিউটর মার্ক মেরি বলেছেন, প্যারিসের কর্তৃপক্ষ তদন্তভার গ্রহণ করবে না৷ কারণ এটি সন্ত্রাসবাদী আক্রমণ হিসাবে বিবেচিত হচ্ছে না৷

টুইটারে মসজিদে হামলার ঘটনাকে জঘন্য অপরাধ বলে অভিহিত করে সোমবার টুইট করেছেন ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল মাক্রোঁ৷ তিনি বলেছেন, ‘‘প্রজাতন্ত্র কখনই বিদ্বেষ সহ্য করবে না৷ দোষীদের শাস্তি এবং আমাদের মুসলিম দেশবাসীকে রক্ষার জন্য সব কিছু করা হবে৷’’

এসআই/কেএম (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন