ফুটবলের বাড়ি যাওয়া ঠেকালো ক্রোয়েশিয়া | খেলাধুলা | DW | 11.07.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ফুটবল

ফুটবলের বাড়ি যাওয়া ঠেকালো ক্রোয়েশিয়া

৫২ বছর পর বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন দেখছিল ইংল্যান্ড৷ সামনে অপেক্ষাকৃত কম ফেবারিট ক্রোয়েশিয়া৷ কিন্তু সে স্বপ্নকে দুঃস্বপ্নে পরিণত করে ফাইনালে লুকা মদ্রিচের দল৷

সেই কবে ১৯৬৬ সালে তৎকালীন পশ্চিম জার্মানিকে হারিয়ে জুলে রিমে কাপ জয় করেছিল স্বাগতিক দেশ ইংল্যান্ড৷ ফুটবলের আবিষ্কারক দেশটি এরপর থেকেই যেন খেই হারিয়েছে৷

অর্ধ শতাব্দী পরে হ্যারি কেইনদের পায়ের ছন্দে সেই স্বপ্নে আবার বিভোর হয়েছিল থ্রি লায়ন্স৷ সমর্থকেরা তো বটেই, ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম এমনকি রাজপরিবারও পূর্ণ সমর্থন নিয়ে ছিল বিশ্বকাপের অপেক্ষায়৷

কিন্তু অন্তত আরো চার বছর ইংল্যান্ডের অপেক্ষা বাড়িয়ে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠে গেল ক্রোয়েশিয়া

অথচ শুরুটা দিয়েছিল অন্যরকমের ইঙ্গিত৷ খেলার একেবারে শুরুতে কিছু বুঝে ওঠার আগেই ৫ মিনিটের মাথায় গোল করে বসেন কিরান ট্রিপিয়ার৷

১২ বছর পর কোন ইংলিশ খেলোয়াড় বিশ্বকাপে ফ্রি কিক থেকে সরাসরি গোল পেলেন৷ এর আগে ২০০৬ সালে ইকুয়েডরের বিপক্ষে ফ্রি কিক থেকে ডেভিড ব্যাকহাম গোল করেছিলেন৷

২০ গজ দূর থেকে বাঁকানো শট ক্রোয়াট ডিফেন্ডারদের মাথার ওপর দিয়ে বার ঘেঁষে ঢুকে যায় জালে৷ গোলকিপার ঝাঁপিয়ে পড়েও ঠেকাতে পারেননি সে বল৷

তবে সমতা ফেরাতে মরিয়া ক্রোয়েশিয়া একের পর এক আক্রমণে গেলেও ভাঙতে পারেনি ইংলিশ ডিফেন্সের দেয়াল৷ প্রথমার্ধ শেষ হয় এক গোলে পিছিয়ে থেকেই৷

দ্বিতীয়ার্ধে অপেক্ষার পালা বেশি দীর্ঘ হতে দেননি ইভান পেরিসিচ৷ ৬৮ মিনিটে ডিবক্সের ভেতরে ভারসালিকোর দারুণ হেডে গোলপোস্টের একেবারে কাছেই বল পেয়ে যান পেরিসিচ৷ এত দ্রুত বলে চলে যায় জালে, কিপারের কিছুই করার ছিল না৷

দ্বিতীয়ার্ধে আর সমতা ভাঙতে পারেনি কেউ৷ খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে৷

এবার নেতৃত্ব নিয়ে নেয় ক্রোয়েশিয়া৷ আবারও পেরিসিচ, তবে এবার করলেন দুর্দান্ত এক অ্যাসিস্ট৷ ১০৯ মিনিটে ডিবক্সে বল হাওয়ায় ভাসিয়ে দেন পেরিসিচ৷ স্টোনসের মাথার ওপর দিয়ে পা তুলে মারিও মান্দজুকিচ বলে গতি ঘুরিয়ে দেন ইংলিশ জালের দিকে৷

গ্যালারিতে ‘ফুটবল বাড়ি আসছে’ লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে হাজারো দর্শক ডুবলো অতিরিক্ত সময়ের কান্নায়৷ ১-২ গোলে ক্রোয়েশিয়ার কাছে হেরে ফুটবল ছাড়াই বাড়ি যেতে হলো ইংলিশ খেলোয়াড়দের৷

কার হাতে উঠছে ফুটবলের সবচেয়ে বড় সম্মান- বিশ্বকাপ? ১৯৯৮ সালের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স, নাকি নতুন পরাশক্তি ক্রোয়েশিয়া? এই প্রশ্নের উত্তর জানা যাবে রোববার৷

অন্যদিকে শনিবার বেলজিয়ামের সাথে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে খেলতে হবে ইংল্যান্ডকে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়