ফিলিপাইন্সে হুমকি দিয়ে টেলিভিশন চ্যানেল বন্ধ | বিশ্ব | DW | 07.05.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ফিলিপাইন্স

ফিলিপাইন্সে হুমকি দিয়ে টেলিভিশন চ্যানেল বন্ধ

ডিসেম্বরে প্রেসিডেন্ট দুতার্তে এবিএস-সিবিএন বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দিয়েছিলেন৷ মঙ্গলবার থেকে ফিলিপাইন্সের সবচেয়ে বড় সম্প্রচার মাধ্যমটি সত্যিই বন্ধ রয়েছে৷

২০১৭ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে দুতার্তের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের ফিরিস্তি বিজ্ঞাপন হিসেবে প্রচার করেনি এবিএস-সিবিএন৷ 

তখন থেকেই ক্ষুব্ধ দুতার্তে৷ গত ডিসেম্বরে সরাসরিই বলেছিলেন, ‘‘আপনাদের চুক্তির মেয়াদ আগামী বছর শেষ হবে৷ চুক্তি নবায়নের আশা করবেন না৷ আপনারা যাতে বিদায় নেন আমি সেই ব্যবস্থা করবো৷'' গত ৪ মে ছিল এবিএস- সিবিএন-এর ২৫ বছরের চুক্তির শেষ দিন৷ চুক্তি নবায়নের আবেদন প্রত্যাহার করে সেদিন টেলিভিশন ও রেডিও সম্প্রচার বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে ফিলিপাইন্সের জাতীয় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এনটিসি৷

সে দেশের সেন্টার ফর মিডিয়া ফ্রিডম অ্যান্ড রেস্পন্সিবিলিটি (সিএমএফআর)-এর চেয়ারপারসন ভেরগেল সান্তোস এবিএস-সিবিএন বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, এর মাধ্যমে দেশের অনেক মানুষকে খবর থেকে বঞ্চিত করা হবে৷ তার ভাষায়, ‘‘ফিলিপাইন্সের প্রত্যন্ত অঞ্চলের লাখ লাখ মানুষ এবিএস-সিবিএন টেলিভিশন ও রেডিওর পরিবেশনা উপভোগ করেন৷ এখন তারা খবর পাবেন কোত্থেকে?'' অভিজ্ঞ এই সাংবাদিক মনে করেন, করোনা ভাইরাসের কারণে সব মানুষ যে ঘরে থাকতে বাধ্য হচ্ছে, সরকার মূলত এর সুবিধা নিচ্ছে, কেননা, অন্য সময় হলে এর প্রতিবাদে মানুষ রাস্তায় নামতো৷

ফিলিপাইন্সের সংবাদমাধ্যম এবিএস-সিবিএন বন্ধের সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷ লকডাউনের মধ্যেই মঙ্গলবার রাতে প্রতিবাদ সমাবেশও হয়েছে৷ এবিএস-সিবিএন শেষ বুলেটিন প্রচারের আগে ম্যানিলায় তাদের প্রধান কার্যালয়ের সামনে কিছু মানুষ মোমবাতি জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে৷

আনা পি. সন্তোষ/এসিবি

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন