ফরাসি শিল্পচোরদের কোন সন্ধান মিলছে না | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 23.05.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ফরাসি শিল্পচোরদের কোন সন্ধান মিলছে না

সিনেমার কায়দা বললে ভুল হবে না৷ একেবারে ওস্তাদি চুরি হয়েছে প্যারিসে৷ মিউজিয়াম থেকে পিকাসো, মাতিস সহ তাবড় কিছু ছবি উধাও হওয়ার পর পুলিশ এখনও দিশাহারা তদন্তে নেমে৷

default

পিকাসোর অনন্যসাধারণ শিল্পকর্মও রয়েছে চুরির তালিকায়

খুব সম্ভব মোট চারজন চোর৷ একটা ভাঙা জানলা বেয়ে তারা ঢুকেছিল৷ সময় নিয়েছিল মোট পনেরো মিনিট৷ তার মধ্যেই পিকাসো, মাতিস, ব্রাক, মোদিগ্লিয়ানি আর লেগের-এর কয়েকটি মাস্টারপিস নিয়ে চম্পট দিয়েছে চোরেরা৷ তাদের কাছে খবর ছিল যে বিপদঘন্টি বা অ্যালার্ম ব্যবস্থা খারাপ ছিল মিউজিয়ামে৷ তার ফায়দাই বেমালুম তুলে নিয়েছে চোরেরা৷ মাত্র একজনের মুখোশপরা মুখের ছবি পাওয়া গেছে গোপন ক্যামেরায়৷ তার থেকে কিছু বোঝা অসম্ভব৷ তিনজন রাতপ্রহরী সারারাত পাহারা দিয়েছেন, তাঁরা কিছুই জানতেও পারেন নি৷ চুরি হয়েছে ভোর চারটের একটু আগে৷ চুরি বোঝা গেছে সকাল সাতটায়৷ এ পর্যন্ত এটুকুই জানা গেছে তদন্তে৷

জোর তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ৷ শহরের মেয়র বেরত্রঁ দেলানো তো রেগে কাঁই৷ প্যারিসের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের ওপর এ এক হামলা, বলছেন মেয়র৷ অবশ্যি স্বীকার করে নিয়েছেন যে মার্চের শেষ থেকে সত্যিই অ্যালার্ম কাজ করছিল না৷ সারানোর কথা চলছিল৷ তার আগেই যা করার করে ফেলেছে বাহাদুর তস্করদল৷

Paris Frankreich Eiffelturm Schnee Winter Wetter Flash-Galerie

শিল্পের রাজধানী প্যারিসের প্রতীক এই আইফেল টাওয়ার

বাহাদুর তো বটেই! সেই সঙ্গে তারা যাকে বলে ঘাড়ে গদ্দানে পেশাদার৷ নাহলে এমন হাতসাফাই অসম্ভব৷ সবচেয়ে বড় কথা, কোন সূত্রও নেই যা থেকে তাদের ধরা যেতে পারে৷ স্বীকার করে নিয়েছেন প্যারিস সিটি হল-এর ডেপুটি সাংস্কৃতিক সচিব ক্রিস্তভ জিরার্ড৷ আদত ক্যানভাসগুলোকে ফ্রেম থেকে যে কায়দায় নিয়ে গেছে ওরা, তা অসম্ভব ‘সফিস্টিকেটেড'৷ বলছেন জিরার্ড৷ সেইসঙ্গেই বলছেন, যদিও এই ছবিগুলোকে চোরবাজারে বেচতেও বেশ সমস্যায় পড়বে চোরেরা৷ কারণ, এগুলো সকলেরই চেনা৷ তাই ধরা পড়ে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা৷

প্রসঙ্গত, গ্রেট মাস্টারদের চোরাই ক্যানভাসগুলোর মোট বাজারদর কম করে হলেও ১০০ মিলিয়ন ইউরো৷ চোরাই ছবি থেকে সেই অর্থ কীভাবে চোরাপথেই আবার আমদানি করতে হয়, প্যারিসের ‘সফিস্টিকেটেড' আর বুদ্ধিমান চোরেরা নিশ্চয়ই তা ভালো করেই জানে৷

আর সেটা আগে ঠিক করেই ওরা বোধহয় ওদের আসল ‘কাজে' নেমেছিল৷

প্রতিবেদন: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা: হোসাইন আব্দুল হাই

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন