ফরাসি ইহুদি স্কুলে হামলার ঘটনায় ২০ বছরের কারাদণ্ড | বিশ্ব | DW | 03.11.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ফ্রান্স

ফরাসি ইহুদি স্কুলে হামলার ঘটনায় ২০ বছরের কারাদণ্ড

সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য আবদেলকাদের মেরাহ নামে এক ব্যক্তিকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে৷ তবে ২০১২ সালে টুলুজ শহরে সাত জনকে হত্যার দায়ে যখন তার ভাই মোহাম্মদ মেরাহকে গ্রেফতার করা হয়, তখন তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছিল৷

বৃহস্পতিবার প্যারিসের একটি আদালত আলজেরিয়ান বংশোদ্ভুত ফরাসি নাগরিক মোহাম্মদ মেরাহ-এর ভাইকে এই সাজা দেন৷ 

আবদেলকাদেরের বিরুদ্ধে সেই সময় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে৷ তবে তার ছোট ভাই মোহাম্মদ যে সাত জনকে হত্যা করেছে, তাতে সে সরাসরি জড়িত ছিল না৷ সেই ঘটনার কয়েক দিন পর অবশ্য  পুলিশের এক অভিযানে নিজের বাসায় নিহত হন মোহাম্মদ

রায় ঘোষণার সময় বিচারক বলেন, ‘‘আবদেলকাদেরকে তার ভাই সন্ত্রাসী আক্রমনের উদ্দেশ্য সম্পর্কে বলেছিল৷ তবে তার ভাই কোথায় এই আক্রমণ করবে বা আদৌ কী ধরনের অপরাধ করবে, সে সম্পর্কে কিছু জানতেন আবদেলকাদের- এই মামলার কোথাওই এটা প্রমাণ হয়নি৷'' 

২০১২ সালে আট দিনের হরতালের সময় ২৩ বছর বয়সি মোহাম্মদ একটি ইহুদি স্কুলে হামলা করে তিন ইহুদি শিশু ও এক শিক্ষককে হত্যা করে৷ পরে সে সেনাবাহিনীর তিন সদস্যকেও হত্যা করে, যাদের মধ্যে দুজন মুসলমান ছিলেন৷

'ছোট ভাইকে তৈরি করেছিলেন আবদেলকাদের'

প্রসিকিউটররা অবশ্য আবদেলকাদেরের মৃত্যুদণ্ড চেয়েছিলেন৷ তাঁদের যুক্তি ছিল যে, আবদেলকাদের তার ভাইয়ের তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন এবং স্কুলে হত্যাকান্ডের জন্য যে স্কুটারটি ব্যবহৃত হয়েছিল, সেটি চুরি করতে তিনি ভাইকে সাহায্য করেছিলেন৷

ফরাসি অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘‘এতে কোনো সন্দেহ নেই যে আবদেলকাদের- ই তার ভাইকে সন্ত্রাসী বানিয়েছেন৷''

তবে নিজের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেন আবদেলকাদের

নজরবন্দী

কট্টর ইসলামপন্থিদের সাথে ঘনিষ্ঠতার কারণে আবদেলকাদের অবশ্য ২০০৬ সাল থেকেই গোয়েন্দা সংস্থার নজরে ছিলেন৷

টুলুজ হত্যাকাণ্ডের তদন্তের সময় তিনি বলেছিলেন, ‘‘ভাইয়ের মৃত্যুতে তিনি গর্বিত, কারণ, তার ভাই ‘যোদ্ধা' হিসেবে মৃত্যুবরণ করেছেন৷''

এএম/এসিবি (ডিপিএ, এএফপি, রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়